‘জীবিত মানুষকে কেউ এভাবে মেরে ফেলে?’

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

ক্যানসারে আক্রান্ত বরেণ্য অভিনেতা আব্দুল কাদেরের করোনা পজিটিভ এসেছে। বর্তমানে নগরীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি। কিন্তু বুধবার (২৩ ডিসেম্বর) দিবাগত রাতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে এ অভিনেতা আর বেঁচে নেই।

শোবিজ অঙ্গনের নির্মাতা ও অভিনয়শিল্পী থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষও শোক প্রকাশ করতে থাকেন। পরিবার ও দায়িত্বরত চিকিৎসকদের কোনোরকম বক্তব্য ছাড়া এ ধরনের ভুয়া খবর ছড়ানোর কারেণ ক্ষুব্ধ তার পরিবারের সদস্যরা।

বুধবার (২৩ ডিসেম্বর) রাতে আব্দুল কাদেরের পুত্রবধূ জাহিদা ইসলাম রাইজিংবিডিকে বলেন—গতকাল রাত ৯টার দিকে এ খবর দেখে আমার হাত-পা পুরো ঠান্ডা হয়ে গিয়েছিল। এর মধ্যে আমার হাজব্যান্ড এসে বলে, দেখো তো এটা কী? আমি সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে ফোন করি। বাবাকে যে টেক কেয়ার করছিল সে জানায়, আমি স্যারকে (আব্দুল কাদের) খাওয়াচ্ছি। খাবার খাওয়ানো শেষ হলে আপনার সঙ্গে কথা বলিয়ে দেব। খাবার খাওয়ানো শেষ হলে বাবার (আব্দুল কাদের) সঙ্গে কথা বলি।   

ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে জাহিদা ইসলাম বলেন—এ ধরনের ভুয়া খবর ছড়ানো এক ধরনের হয়রানি, মেন্টাল টর্চার। এমনিতেই আমরা মানসিকভাবে এক প্রকার দুঃশ্চিন্তার মধ্য দিয়ে যাচ্ছি, তারমধ্যে জীবিত মানুষকে কেউ এভাবে মেরে ফেলে? আমার তো মনে হয় যারা এ ধরনের খবর ছড়াচ্ছে তারা এক প্রকার গেম খেলছে! যারা এ ধরনের কাজ করছে সম্ভব হলে তাদের বিরুদ্ধে আপনারা কোনো ব্যবস্থা নিন।

ক্যানসারে আক্রান্ত আব্দুল কাদেরকে ভারতের চেন্নাইয়ের ক্রিস্টিয়ান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছিল। গত ২০ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় তাকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়। পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী এয়ারপোর্ট থেকে তাকে এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সোমবার (২১ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় তার কোভিড-১৯ পরীক্ষার ফল পজিটিভ আসে। বর্তমানে এ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি আছেন। ডা. ফেরদৌস শাহরিয়ার সাঈদের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা নিচ্ছেন এই অভিনেতা।


সূত্রঃ রাইজিং বিডি

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin