চিটাগংরোড টু গুলিস্তানের ভাড়া ২৫০ টাকা হাকছেন বাইকাররা

শেয়ার করুণ

গত ১লা আগস্ট থেকে খুলে দেওয়া হয়েছে রপ্তানীমুখী শিল্পকারখানা। শিল্পকলকারখানা খুলে দেওয়ায় মহাসসড়কগুলোতে বেড়েছে মানুষের চলাচল। ব্যক্তিগত গাড়ির পাশাপাশি বেড়েছে বাইকের সংখ্যাও। যাদের ব্যাক্তিগত গাড়ি নেই তারা দ্রুত কর্মস্থলে পৌঁছাতে আশ্রয় নিচ্ছেন বাইক শেয়ারিং এর। গনপরিবহন না থাকায় নিজেদের ইচ্ছেমতো ভাড়া হাকছেন বাইকাররা।

ইউনুস আলী পেশায় একজন চাকুরীজীবি। মৌচাক থেকে তার প্রতিদিন গুলিস্থান যেতে হয়। আগে ২০ টাকা ভাড়া দিয়ে চলে যেতেন গুলিস্তান। মাঝে অর্ধেক আসন ফাকা রেখে গনপরিবহন চললে বর্ধিত ভাড়ায় কিছুটা সমস্যা হলেও তা সামলে নিয়েছিলেন। কিন্তু এবারের লকডাউনে খুবই সমস্যায় পড়তে হচ্ছে তাকে। মাঝে মাঝে পিক আপ ভ্যানে করে গুলিস্তান চলে যান ৫০-৬০ টাকা ভাড়ায়। কিন্ত অন্য সময় যেতে হয় বাইকে। গনপরিবহন না থাকায় বাইকাররা হাকেন অস্বাভাবিক ভাড়া। ২৫০ টাকার নিচে কোন বাইকারই যেতে চান না গুলিস্থান। সবাই মিলে এক সিন্ডিকেট করেছেন।

এ রকম চিত্র প্রতিদিনই দেখা যায় চিটাগংরোড- গুলিস্তান মহাসড়কে। গনপরিবহন বন্ধ রেখে অফিস আদালত খোলা রাখায় প্রতিদিনই ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে ঢাকাগামী যাত্রীদের। একই সমস্যা আসার সময়ও। নিয়মিত অফিসগামী এসব যাত্রীদের দাবি অবিলম্বে এসব সমস্যার সমাধানে সরকার কার্যকর উদ্যোগ নিক।

নিউজটি শেয়ার করুণ