চতুর্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন আগামীকাল

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

কাল চতুর্থ ধাপে ৮৪০টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে ৩৩ ইউপিতে ভোট হবে ইভিএমে। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত টানা ভোটগ্রহণ চলবে। এ উপলক্ষে আজ কেন্দ্রে কেন্দ্রে পাঠানো হচ্ছে ভোটের সরঞ্জাম।

নির্বাচন কমিশন (ইসি) ইতোমধ্যেই ভোটগ্রহণের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। শুক্রবার প্রার্থীদের নির্বাচনী প্রচারও শেষ হয়েছে। আগের তিন দফার ধারাবাহিকতায় এবারও ভোটের দিন নির্বাচনী সহিংসতার আশঙ্কা করা হয়েছে বিভিন্ন মহল থেকে। তবে নির্বাচন কমিশন এ বিষয়টি মাথায় রেখে সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছে।

এদিকে সকাল থেকেই প্রিজাইডিং অফিসারের নেতৃত্বে ভোট কেন্দ্রে ইভিএম, ব্যালট বাকশোসহ নির্বাচনী সামগ্রী পাঠানো শুরু হয়েছে। তবে ব্যালট পেপার বিতরণ করা হবে আগামীকাল সকালে।

অবাধ ও শান্তিপর্ণূ ভোট গ্রহনে কঠোর অবস্থানে রয়েছে প্রশাসন। সর্তক রয়েছেন আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরাও। এর মধ্যে বেশির ভাগ ভোটকেন্দ্রকে অতিগুরুত্বপর্ণূ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

এদিকে চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচন কেন্দ্র করে প্রতিদিনই বিভিন্ন এলাকায় সহিংস ঘটনা ঘটছে। এর মধ্যে বেশিরভাগ ঘটনাই ঘটছে সরকারী দল আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের সঙ্গে একই দলের বিদ্রোহী প্রার্থীদের। স্থানীয় সরকারের একেবারে শেষ স্তরের নির্বাচন হওয়ায় সবাই চায় নিজ এলাকায় তার প্রভাব বিস্তার করতে।

অন্যদিকে কেউ পরিস্থিতি অস্থির করার চেষ্টা করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে হুঁশিয়ার করেছে প্রশাসন। এছাড়া মাঠে থাকবেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও তাৎক্ষণিক নির্বাচনি অপরাধ বিচার করার জন্য মুখ্য বিচারিক আদালতের বিচারকগণ।

এদিকে নির্বাচন কমিশনের যুগ্ম সচিব এস এম আসাদুজ্জামান জানিয়েছেন, চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন ২৯৫ প্রার্থী। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন ৪৮ প্রার্থী। এছাড়া সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১১২ জন ও সাধারণ সদস্য পদে ১৩৫ প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin