গ্যাস-পানিসহ ৩ দফা দাবীতে আমরা না.গঞ্জবাসীর মানববন্ধন

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

গ্যাস পাইপ পরিবর্তন, নগরবাসীর জন্য নিরবিচ্ছিন্ন পর্যাপ্ত বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ এবং ঔষধের খুচরা মূল্য ও বিভিন্ন ডায়াগনষ্টিক সেন্টারের বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষা ফি কমানো সহ ৩ দফা দাবীতে আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী সংগঠনের মানববন্ধন করে ।

মঙ্গলবার (৮ জুন) বেলা ১১টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাব ভবনের সামনে ওই মানববন্ধনটি অনুষ্ঠিত হয়।

আমরা নারায়ণগঞ্জবাসীর সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা নূর উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন, রমজান উল রশিদ, আহাম্মদ আলী বেপারী, লোকমান আহমেদ, বদরুল হক, জাহাঙ্গীর কবির পোকন, বীরমুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও সাবেক কমিশনার আজাহার হোসেন, দুলাল মল্লিক, মাকিদ মোস্তাকিম শিপলু, অহিদুজ্জামান, ওয়াহিদ সাদাত বাবু, জহিরুল ইসলাম মিন্টু, মোস্তফা কামাল, আব্দুল হাই।

আমরা নারায়ণগঞ্জবাসীর সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা নূর উদ্দিন আহমেদ বলেন, ২০১৫ সালে যখন তিতাস কোম্পানী ১২” পাইপ লাইন গোদনাইল থেকে চাষাড়া হয়ে পঞ্চবটি পর্যন্ত স্থাপন করে তখন আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী লাইনের পাশে জনগণের সমর্থন আদায়ে তিতাসকে সার্বিক সহযোগিতা করেছি। তখন তৎকালীন তিতাসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নারায়ণগঞ্জবাসীকে চাষাড়া থেকে নিতাইগঞ্জ পর্যন্ত একটি ৬” পাইপ লাইন স্থাপনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। আমরা সে প্রতিশ্রুতি ৬” পাইপ লাইন দ্রুত স্থাপন সহ পুরোনো সকল পাইপ লাইন পরিবর্তন করে নতুন পাইপ লাইন স্থাপনের জোর দাবী জানাই। এবং নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন এলাকায় দুই দফায় সকাল ও বিকাল পানি সরবরাহের কারণে নগরবাসীর চাহিদা পূরণ হচ্ছে না। যে কারণে বিভিন্ন ওয়ার্ডে পাড়া মহল্লা তীব্র পানি সংকট দেখা দিয়েছে। এমতাবস্থায় আমরা প্রয়োজনীয় পানির চাহিদা পূরণে ভোর ৪টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত নিরবিচ্ছিন্ন ভাবে পানি সরবরাহের জন্য সরবরাহকারী কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানাই।

আমরা নারায়ণগঞ্জবাসীর সাধারণ সম্পাদক মো. নাসির উদ্দিন মন্টু বলেন, নারায়ণগঞ্জে গ্যাস, পানি সংকট সহ বিভিন্ন হাসপাতাল, ডায়াগনষ্টিক সেন্টারের নানাবিধ অনিয়ম দেখা যাচ্ছে। ঔষধ শিল্পে মূল্য সংক্রান্ত বিষয়ে জনগণের কাছ থেকে এমআরপি খুচরা বিক্রয় মূল্য নামে যে মূল্য নেওয়া হয় তার চেয়ে ১৫-২৫% কমমূল্যে অধিকাংশ পাইকারী দোকানগুলো থেকে তা বিক্রিত হয়, তাই আমাদের প্রস্তাব সকলের ঔষধের মূল্য যৌক্তিক পর্যায়ে এবং জনগণের ক্রয় ক্ষমতায় রাখার জন্য নূন্যত পক্ষে ২০% কমিয়ে দেওয়া হউক। যার প্রভাব সকল খুচরা দোকানগুলোতে থাকবে।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, জনাব খাজা আহমেদ, হাজী মনির হোসেন, শ্রমিকনেতা সাইফুল ইসলাম, নাজমুল হাসান নান্নু, মো. বাবুল, পনিক সভাপতি সেলিম, মো. রফিক, আবুল সরদার ও সেলিম হোসেনসহ অসংখ্য নেতৃবৃন্দ।

সূত্রঃ লাইভ নারায়ণগঞ্জ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin