খোকন সাহা দেবোত্তর সম্পত্তি রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন: ড. নিম চন্দ্র

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

এড. খোকন সাহা এই দেবোত্তর সম্পত্তি রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন।  তাছাড়া বিগত কয়েকদিনে আপনারা এলাকাবাসী এর প্রতিবাদ করেছেন। তাই আজ বিভিন্ন ক্ষেত্রে এটা প্রভাবিত করেছে। এর আগে আমরা জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছিলাম এবং সুস্পষ্টভাবে বলেছিলাম যে, এটা দেবোত্তর সম্পত্তি। খোকন সাহা আপনাদের সামনে ৬ টি দলিল দেখিয়েছে। এটা প্রকৃতপক্ষে দেবোত্তর সম্পত্তি, মন্দিরের সেবায়েত নিজে বলেছেন, এই পুকুর সাড়ে ৩শ’ বছর আগের এবং ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের সম্পত্তি’।

শনিবার ( ৬ ফেব্রুয়ারী ) শহরের দেওভোগের ঐতিহ্যবাহী জিউস পুকুর দেবোত্তর সম্পত্তি নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভির পরিবার থেকে রক্ষার দাবিতে নারায়ণগঞ্জ জেলা হিন্দু সম্প্রদায়ের গণ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য বাংলাদেশ হিন্দু, বৌদ্ধ, খিস্ট্রান ঐক্য পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ড. নিম চন্দ্র ভৌমিক এসব কথা বলেন।

নিম চন্দ্র ভৌমিক বলেন, এই সম্পাত্তি আজ যে দলিলই হোক না কেনো, সেটি অবৈধ। কাজেই আমি বলবো, আজ এখনে যারা আন্দোলন করছে, এটা ন্যায় সংগত আন্দোলন। আপনাদের আন্দোলন-সংগ্রাম এর কারণে আজ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সামাজিক নেতৃবৃন্দ সকলে সংহতি প্রকাশ করেছেন।  আজ যারা এই সম্পত্তিকে নিজের সম্পত্তি দাবি করছেস এটা খুবই নিন্দনীয়। মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীকে বলবো, আপনার যদি আইনের প্রতি শ্রদ্ধা থাকে, তাহলে এই দেবোত্তর সম্পত্তি ছেড়ে দিবেন। কারণ আমরা দীর্ঘ সময় নিয়ে মুক্তিযুদ্ধ করেছি এবং লাখ লাখ মানুষ এই মুক্তিযুদ্ধে প্রাণ দিয়েছে, এর লক্ষ্য ছিলো বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্ব একটি আধুনিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করা। যেখানে ধর্ম নিরপেক্ষ, শোষন মুক্ত গণতান্ত্রিক একটি দেশ কায়েম হবে। গনতন্ত্রের প্রধান লক্ষ্য হলো আইনের শাসন, যেখানে ধর্ম নির্বিশেষে সবার সমান অধিকার থাকবে।

এ সময় তিনি কাতার ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল-জাজিরার প্রতিবেদনের বিষয়ে বলেন, পচাঁত্তরে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর এই সংবিধানের পরিবর্তন করা হয়েছিলো। কিন্তু শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এই দেশে উন্নয়ণ হচ্ছে। আজ এই উন্নয়নের ধারাকে ধ্বংস করার জন্য ষড়যন্ত্র চলছে, আজকে আল জাজিরা সহ বিভিন্ন সাম্প্রাদয়িক শক্তি অপ প্রচার চালাচ্ছে। আমি মেয়রকে বলছি আপনি ক্ষমতাশীন দলের মেয়র অথচ এইখানে পরিস্কার পরিচ্ছন্নের কাজ করেন না। উপস্থিত কাউন্সিলর বলেছেন আপনি তাকে নিষেধ করেছেন। কিন্তু কাউন্সিলর সাহেব সেটি নিজে করে দেয়ার কথা বলেছেন। যারা আজ আল জাজিরার পক্ষে কথা বলছে তারাই দেশের গনতন্ত্রকে বিচ্ছিন্ন করার চেষ্টা করছে। তাই আমি বললো সবাই আমরা এক সাথে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করবো।

গন সমাবেশে বাংলাদেশ হিন্দু, বৌদ্ধ, খিস্ট্রান ঐক্য পরিষদ নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি দীপক কুমার সাহার সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন, প্রধান অতিথি বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ডা. নিম চন্দ্র ভৌমিক, প্রধান বক্তা বাংলাদেশ পূজা উদযাপন কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক শ্রী নির্মল চ্যাটার্জী, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত মো. শহীদ বাদল(ভিপি বাদল), নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড খোকন সাহা, নারায়ণগঞ্জ জেলা ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি ও মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বাবু চন্দন শীল, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজাম,  নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবলীগের সভাপতি সাহাদাত হোসেন ভুইয়াঁ সাজনু, নারায়ণগঞ্জ মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের মভাপতি মো. জুয়েল হোসেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড মুহাম্মদ মোহসীন মিয়াসহ আরো অনেকে।

সূত্রঃ লাইভ নারায়ণগঞ্জ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin