খাবারে চেতনানাশক মিশিয়ে দুই বান্ধবীকে ধর্ষন

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় গার্মেন্টস কর্মী দুই বান্ধবীকে খাবারের সাথে চেতনানাশক মিশিয়ে অজ্ঞান করে ধর্ষণের অভিযোগে দেলোয়ার হোসেন নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আজ রোববার (২৯ আগস্ট) ভুক্তভোগী তরুনীদের থানায় অভিযোগ দায়েরের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত দেলোয়ার হোসেন রংপুর জেলার কাউনিয়া থানার বলববিশু গ্রামের মো. ফজলুল হকের ছেলে বলে জানা গেছে।

পুলিশ জানায়, ফতুল্লার হাজীগঞ্জ মুক্তিযোদ্ধা সড়কের একটি বাড়িতে স্ত্রীকে নিয়ে অভিযুক্ত দেলোয়ার এক রুমে ও অন্যরুমে দুই গার্মেন্টস কর্মী বান্ধবী সাবলেটে থাকতেন। তাদের ফ্ল্যাটে রান্না করার ঘর একটি। প্রায় ৭ দিন আগে দেলোয়ারের সঙ্গে স্ত্রীর ঝগড়া হলে স্ত্রী বাবার বাড়ি চলে যান। স্ত্রীর অনুপস্থির সুযোগকে কাজে লাগিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে দুই বান্ধবীর রান্না করা খাবারে নেশা জাতীয় দ্রব্য মেশান দেলোয়ার। কাজ শেষে গার্মেন্টস থেকে ফিরে ঘরে থাকা রান্না করা খিচুড়ি খেয়ে শুয়ে পড়েন তারা। অবচেতন দুই বান্ধবীকে পর্যায়ক্রমে ধর্ষণ করেন বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীদের ।

এব্যাপারে ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রকিবুজ্জামান বলেন, ভুক্তভোগী দুই তরুণীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। ইতোমধ্যে এক তরুনী বাদি হয়ে মামলা করেছেন। মামালা দায়েরের প্রেক্ষিতে আমরা ধর্ষক দেলোয়ারকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করেছি।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin