খানপুর হাসপাতালে অগুন আতংকে মোবাইলের আলোতে হল জরুরী অপারেশন

শেয়ার করুণ

পরিত্যক্ত ম্যাট্রেক্স থেকে হঠাৎ আগুন। আগুনের সংবাদে জীবন বাঁচাতে রোগী ও তাঁদের স্বজনরা যে যেভাবে পারছেন ছুটছেন। ঠিক ঐ সময় অপারেশন রুমে চলছিল ২০ বছর বয়সী তরুণীর সিজার। এরই মধ্যে চলে গেছে বিদ্যুৎ। আগুন আতঙ্কের পরও এতটুকুও বিচলিত না হয়ে মোবাইলের আলোতে অপারেশন চালিয়ে গেছেন হাসপাতালের চিকিৎসকরা।

গতকাল মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) দুপুর পৌঁনে ১টার দিকে খানপুর হাসপাতালে চিকিৎসক মিনারা সিকদার, দিপানিটা ধরের নেতৃত্বে অপারেশনটি হচ্ছিল। সহযোগী ছিল আরও ৩ থেকে ৪ জন।

অপারেশন হওয়া ওই কিশোরীর নাম হাওয়া বিবি। সে ১৮ নং ওয়ার্ডের ৪৮ নম্বর সিটে ভর্তি রয়েছে। মা ও শিশু দু‘জনই এখন সুস্থ্য রয়েছে।

হাসপাতালের এক কর্মচারী জানান, হাসপাতালের বাইরে বিনষ্ট করার জন্য কিছু মেট্রেস রাখা হয়েছিল। সেখান থেকেই আগুনের সূত্রপাত।

হাওয়া বিবির স্বজনরা জানান, আগুন লাগার ওই সময়টিতে আমরা খুবই আতঙ্কিত ছিলাম। সকল রোগী ও তাদের স্বজনরা আগুন আতঙ্কে হাসপাতাল ছেড়ে বাহিরে চলে গেলেও আমরা যেতে পারিনি। অপারেশন করা অবস্থায় চিকিৎসকরাও যায়নি। বর্তমানে মা-শিশু দু‘জনই ভালো আছে।

হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আবুল বাশার বলেন, আগুনে কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। চিকিৎসা সেবা অব্যহত রয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ সহকারী পরিচালক ফখরুদ্দিন বলেন, অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। কোন রকম ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। সিগারেটের আগুন থেকে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সূত্রঃ লাইভ নারায়ণগঞ্জ

নিউজটি শেয়ার করুণ