কে এই কবীর চৌধুরী তন্ময় ?

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

বেশ কিছু দিন যাবত দেখা যাচ্ছে জাতীয় অনলাইন নিউজ পোর্টালগুলির সকল রাজনৈতিক নিউজে একজনকে কমেন্ট করতে ,যার কমেন্টে পড়ছে হাজার উপরে লাইক আবার দেখা গেছে তার মন্তব্যের প্রতি মন্তব্য ছেয়ে যাচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়াতে। যে কোন রাজনৈতিক নিউজ হওয়ার পর পর পাঠকরা তাকে খুঁজে বেড়ায় , মূলত তাকে কি ঘিরে সৃষ্টি হয়েছে এক প্রকার বিনোদনের ।তাই পাঠকদের কৌতুহল থেকে তার ব্যাপারে জানার চেষ্টা করে তার ব্যাক্তিগত ওয়েব সাইট থেকে যে সকল তথ্য সংগ্রহ করছি তা তুলে ধরা হলোঃ

কবীর চৌধুরী তন্ময় একজন ব্লগার, কলাম লেখক, গবেষক, রাজনীতিবিদ এবং প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি বাংলাদেশ অনলাইন অ্যাক্টিভিষ্ট ফোরাম (বোয়াফ)।ইতিহাস-ঐতিহ্য আর শিল্প-সংস্কৃতির কুমিল্লা শহরের ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের পাশে অবস্থিত চম্পক নগরে ১৯৮২ সালের ২০ জুলাই জন্ম গ্রহণ করেন।

বাবা এম এ খালেক চৌধুরী মহান মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে অস্ত্র হাতে যুদ্ধ করেন। বড় কাকা সুজত আলী চৌধুরী স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকার বাহিনীর হাতে নির্মমভাবে শহীদ হন, যাঁর মরদেহ তিঁনি ও তাঁর পরিবার আজও খুঁজে পায়নি।

খুব ছোটকাল থেকেই সামাজিক সংগঠক, পাঠাগার স্থাপন ও ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে প্রগতিশীল মিছিলে নিজেকে স্বক্রীয় রাখেন। কুমিল্লা জেলা ছাত্রলীগের (কবির-মিঠু/লিয়াকত-বাবু) মাধ্যমে ছাত্র রাজনীতি শুরু করেন। ১/১১ এর সময় পুলিশের হাতে গ্রেফতার হোন। তথাকথিত তত্ত্ববধায়ক সরকার ছাত্রলীগের রাজনীতি নিষিদ্ধের ষড়যন্ত্র করলে তখন ছাত্ররাজনীতি টিকিয়ে রাখার জন্য জেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ দিয়ে ছাত্রকল্যাণ পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে মাঠের রাজনীতিতেও স্বক্রীয় ভূমিকা পালন করেন।

বাংলাদেশ মোবাইল ফোন রিচার্জ অ্যান্ড ব্যাংকিং অ্যাসোসিয়েশন-এর দেশব্যাপী আন্দোলনে কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও কুমিল্লা জেলা প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।

স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকার, যুদ্ধাপরাধী, মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচারের দাবিতে শাহবাগে গণজাগরণ মঞ্চের শুরুর দিক থেকে আন্দোলনে স্বক্রিয় ভূমিকা পালন, বিভিন্ন ব্লগে লেখালেখি, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও মাঠে-ময়দানে বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রামে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। পাঁচ বছর সাংবাদিকতা করেছেন। তিঁনি জাতীয় দৈনিক ও অনলাইনগুলোতে নিয়মিত কলাম লিখছেন। পেশা ব্যবসা।

২০১৩ সালে গণজাগরণ মঞ্চের প্রগতিশীল ও জাতি পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ, মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস এবং স্বাধীনতার পক্ষে একঝাঁক ব্লগার, লেখক, গবেষক, সাংবাদিক ও অনলাইন অ্যাক্টিভিষ্টদের নিয়ে গঠিত বাংলাদেশ অনলাইন অ্যাক্টিভিষ্ট ফোরাম (বোয়াফ)-এর প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। ইতোমধ্যেই দেশের ৪৩টি জেলায় এ সংগঠনের আহ্বায়ক ও পূর্নাঙ্গ কমিটি অনুমোদন করা হয়েছে। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ (শেখ হাসিনা-সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম) কেন্দ্রীয় উপ-কমিটিতে সহ-সম্পাদকও হয়েছেন।

পাশাপাশি উল্লেখযোগ্য- সম্মিলিত সংগ্রাম পরিষদ (৬৫টি সংগঠন নিয়ে সন্ত্রাস-জঙ্গি নির্মূল কমিটি) এর সমন্বয়ক, কুমিল্লা নাগরিক ঐক্য পরিষদ-এর সভাপতি, আলোকিত প্রতিবন্ধি-কেন্দ্রীয় কমিটি’র উপদেষ্টা, বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি-কেন্দ্রীয় কমিটি’র উপদেষ্টা, এফবিসিসিআই’র (জেনারেল বডি) সদস্য, সস্প্রীতি বাংলাদেশ-এর সদস্য, রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি’র সদস্য, বাংলাদেশ-ভারত সৈত্রী সমিতি’র আজীবন সদস্য-সহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতি সংগঠনের সাথে জড়িত আছেন।

স্ত্রী নাজমা আক্তার রোজী অবসরে গবেষণা, লেখালেখি করলেও পেশা ব্যবসা। স্কুলে পড়ুয়া একমাত্র কণ্যা তাশফিয়া কবীর তাসনীম নিয়ে তাঁর পারিবারিক বলয়। বর্তমানে ঢাকায় স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন।

সূত্রঃ কবির চৌধুরী তন্ময় ডট কম

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin