কারিগরি শিক্ষার উপর জোড় দিতে হবেঃ না.গঞ্জে শিক্ষামন্ত্রী

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, ২০০১ থেকে ২০০৮ সালে বিএনপি জামাতের আমলে বাংলাদেশের শিক্ষার মান বাড়েনি, কমেছে। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের সব শিশুকে শিক্ষার আওতায় নিয়ে আসতে পেরেছি। ২০১৮ সালের ইশতেহারে আমরা বলেছি শিক্ষার মান বাড়াতে হবে।

আমরা যেন শুধু শিক্ষিত বেকার তৈরি না করি। এজন্য কারিগরি শিক্ষাও দিচ্ছি, দেশে বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যাও বাড়িয়েছি। সেখানে কর্মোপযোগী শিক্ষা দেওয়ার চেষ্টা করছি।

বৃহস্পতিবার (৩১ মার্চ) দুপুরে বন্দরের ৪৭ নং লালমিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবনের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি আরো বলেন, যোগাযোগ থেকে শিক্ষা ব্যবস্থা সকল ক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। আমরা যত উন্নয়ন করি না কেন শিক্ষার উন্নয়ন না হলে তা কাজে আসবে না। বঙ্গবন্ধু সেই সময় স্বল্প বাজেটের মধ্যেই সর্বোচ্চ বরাদ্দ দিয়েছিলেন শিক্ষা খাতে। শিক্ষা সর্বশ্রেষ্ঠ বিনিয়োগ।

এটাই আমাদের সবচেয়ে বড় প্রজেক্ট। শিক্ষার্থীরা পড়ে পড়ে শিখবে, জানবে, মুখস্ত নয়। তারা যেন সে শিক্ষাটাকে কাজে লাগাতে পারে। নয়তো সেটার কোনো মূল্য নেই। তারা মূল্যবোধ শিখবে, অসাম্প্রদায়িক মানুষ হবে। মানুষের প্রতি সম্মানবোধ নিয়ে তারা বড় হবে। বৈধ কোনো কাজকে তারা ছোট মনে করবে না। তারাই গড়বে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা।

তিনি বলেন, যারা নিজের এলাকায় ভোট পায় না তারা নাকি ঐক্যজোট করছে। আমরা তাদের দেখে নিয়েছি এরা কারা। এরা একাত্তরের সেই ধর্ষক হত্যাকারীদের দোসর, ২০১৩ সালের অগ্নিসংযোগকারীদের দোসর।

অনেকে বলেন আমি রাজনীতি করি না। রাজনীতি সবাই করবে, প্রতিটি মানুষকে রাজনীতি সচেতন হতে হবে। অগ্নিসংযোগকারীদের হাতে আপনার দেশের দায়িত্ব দেবেন না। তাদের হাতে আপনারা নিরাপদ নন।

অনুষ্ঠানে প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত আন্তরিক। আপনারা জানেন আগে কেউ প্রাথমিক শিক্ষা নিয়ে ভাবেননি। আজকে আমাদের শিক্ষা অনেক দূর এগিয়েছে। আজ স্কুলগুলোর অনেক উন্নতি হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, আমরা সকল মুক্তিযোদ্ধাদের ট্যাক্স, পানির বিল মওকুফ করে দিয়েছি। আগামী তিন মাসের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী ছয়-সাতটি মেগা প্রজেক্ট উদ্বোধন করবেন। আমরা নিজেদের অর্থায়নে নগর ভবন করেছি, শেখ রাসেল পার্ক করছি এবং চারুকলা ইনস্টিটিউট করছি। নারায়ণগঞ্জে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে।

এ সময় জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া মন্ত্রী কদম শরীফ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় ও নারায়ণগঞ্জ চারুকলার ইন্সটিটিউটের ছাত্রাবাসের ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন করেন।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin