কাদের ছত্রছায়ায় কিশোর গ্যাং গড়ে উঠছে দেখতে হবেঃএসপি জায়েদুল

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

ছোটবেলায় মাগরিবের আযান হলে কিভাবে বাসায় ঢুকবো ভয়ে থাকতাম। আর এখন অহরহ রাতে ছেলেরা ঘুরে বেড়াচ্ছে, তাদের কেন খবর নেন না। সন্তান কার সাথে মিশছে? সন্তানের চুল লাল হয়েছে কি ভাবে? ফজরের ফরজ নামাজ ঠিক মতো পড়ে না, তারা দাঁড়ি রাখে বিভিন্ন স্টাইলে। ৬-৭ বছরের ছেলেদের হাতে কেন মোবাইল ফোন? কাদের ছত্রছায়ায় কিশোর গ্যাং গড়ে উঠছে? এ গুলো খেয়াল রাখতে হবে।

বন্দর থানায় ওপেন হাউস ডে মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) বিকালে এ কথা গুলো বলেছেন জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম।

তাঁর ভাষ্য, বন্দরে বেশি কিশোর গ্যাংয়ের আধিপত্য। এর নিয়ন্ত্রণ করতে প্রথমত বাবা-মা, দ্বিতীয়ত শিক্ষক, তৃতীয়তে সমাজের জনপ্রতিনিধি ও চতুর্থে পুলিশের এগিয়ে আসতে হবে। মাদক নির্মূল না হলে করোনার চেয়ে ভয়াবহ হবে কিশোর গ্যাং।

মোহাম্মদ জায়েদুল আলম বলেন, ‘পরিসংখ্যান ব্যুরোর তথ্য মতে, নারায়ণগঞ্জে ১ কোটি মানুষ বসবাস করেন। ছোট্ট এ জেলায় বিশাল মানুষের বসবাস স্বাভাবিক চলা কষ্টকর। তারপরও যেটুকু আছে আলহামদুলিল্লাহ। এখানকার ৮০% লোকই বাহিরের, যারা এখানে সদ্য স্থায়ী হয়েছেন। বাকি ২০% আদি নারায়ণগঞ্জের। তাই সকলের দৃষ্টিও নারায়ণগঞ্জের দিকে। সম্প্রতি জিসা মনি কান্ডে দারোগা ৩০২ দ্বারা চার্জ গঠন করে নাই, সেটা নিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্প পর্যন্ত জানছে মনে হয়। যেখানে অন্য জেলা গুলোতে ১০টা মার্ডার হলে সমস্যা হয় না। এখানে ১টা মার্ডার হলেই সকলের দৃষ্টিগোচর হয়।’

সাংবাদিক ইলিয়াস খুনের ঘটনায় আসামীর জামিন পাওয়া নিয়ে মোহাম্মদ জায়েদুল আলম বলেন, আদালতে সরকারের পক্ষ থেকে পিপি থাকেন, জামিনের বিষয়টি সম্পূর্ণ জজ এর এখতিয়ার। এ মাসের মধ্যেই চার্জশিট দেয়া হবে। তাড়াহুরা করলে মামলা শেষ, ভুল একজন ঢুকলে প্রকৃত আসামীরাই ছাড় পেয়ে যাবে।

পুলিশ সুপার আরও বলেন, ‘এ দেশকে সুন্দর করতে হলে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা করতে চাই। শেখ হাসিনার ভিশন অর্থনীতির মুক্তি পেতে চাইলে একত্রে কাজ করতে হবে। করোনাকালে পুলিশরা রাত-দিন কাজ করেছে। আমরা সকলে সচেতন হলে করোনায় যেমন হটস্পট প্রথম হয়েছিলাম, এবার করোনামুক্ত হিসেবেও প্রথম হবো ইনশাআল্লাহ।’

অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জ জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ‘খ’ সার্কেল খোরশেদ আলম বলেন, দেড় বছর খ সার্কেল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি কাজ করা। মাঠে ঘাঠে চষে বেড়িয়েছি। করোনার ভয়াবহ সময়ে সকলের সহযোগিতা এবং সাহায্যের জন্য এসপি স্যারের নির্দেশে কাজ করেছি। পোস্টিং ২বছর পর পর হয়, যেকোন সময় বিদায় নিতে হবে। কারো মনে কষ্ট দিয়ে থাকলে ভুল করে থাকলে ক্ষমা করে দিবেন। পবিত্র কুরআন এ আছে কেউ ভালো কাজ করলে তাকে আল্লাহ ভালো নেতৃত্ব দেন। খারাপ করলে দুঃশাসক চাপিয়ে দেন। এসপি জায়েদুল স্যার সকল পুলিশ ক্যাডারের সাধারণ সম্পাদক। যেখানে গিয়েছেন আলোকিত করেছেন। স্যারের স্ত্রী আমাদের ভাবি বাংলাদেশ পুলিশের অত্যন্ত পাওয়ারফুল ইউনিটে কর্মরত। ২২তম বিসিএস সকল ক্যাডারের সাধারণ সম্পাদক জায়েদুল স্যার। একদিন স্যার বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিবেন ডিআইজি আইজিপি হিসেবে আসবেন।

ওপেন হাউস ডে অনুষ্ঠানে বন্দর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এমএ রশিদ, বন্দর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইউএনও শুক্লা সরকার, বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মো ফখরুদ্দিনসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সূত্রঃ লাইভ নারায়ণগঞ্জ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin