কলাগাছিয়া ইউনিয়নকে বদলে দিচ্ছে সেলিম ওসমানঃ দেলোয়ার চেয়ারম্যান

শেয়ার করুণ

কলাগাছিয়া ইউনিয়নকে বদলে দিচ্ছেন সেলিম ওসমান এমটাই মনে করেন বন্দর কলাগাছিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান দেলোয়ার প্রধান।

একটি রাস্তা প্রসঙ্গে তিনি বলেন , সংসদ সদস্য একেএম সেলিম ওসমানের ১৫ লাখ টাকা ও আমরা ব্যাক্তিগত ২লাখ ৮০ হাজার টাকা, মোট ১৭লাখ ৮০ হাজার টাকা ব্যায়ে একটি রাস্তা নির্মান হয়েছে।

লাইভ নারায়াণগঞ্জের একটি প্রতিবেদন অনুযায়ী জানা গেছে, সম্প্রতি ২নং মাধবপাশা আলহাজ্জ খোশেদোন নেসা উচ্চ বিদ্যালয় হইতে বন্দর রেললাইন পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৪ হাজার ফুট সড়ক ১৪ফুট চওড়া রাস্তা নির্মান করা হয়।

এতে করে কলাগাছিয়া ইউনিয়নের সাবদী, দিগলদি, হাইজাদি, চাঁনপুর, মাধাবপাশা, কান্দিপাড়া, আইসতলা, কলাবাগ, জিউধারা, এমনকি সোনারগাঁও থানাধীন হোসেনপুরসহ আশে পাশের প্রায় কয়েক লাখ মানুষ খুব সহজেই বন্দরে যাতায়েত করতে পারছে। যা দীর্ঘ দিনের লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়িত হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানের ‘কাবিরখা’ বরাদ্দের অর্থ ও কলাগাছিয়া ইউনিয়ণ পরিষদের চেয়ারম্যানের অর্থ সহযোগিতায় এ সড়ক নির্মান করা হয়।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানায়, বন্দর উপজেলায় এই প্রথম জমির মধ্যে দিয়ে এতো বড় রাস্তা হচ্ছে। এমপি সাহেবের সাহসে চেয়ারম্যান সাহেবের উদ্যেগে এটি বাস্তবায়ন করা হয়েছে। এই চেয়া্রম্যান না থাকলে এই রাস্তা বাস্তবায়ন করা সম্ভব হতো না।

এবিষয়ে চেয়ারম্যান মো. দেলোয়ার হোসেন প্রধানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আসলে আমাদের সবার অভিভাবক এমপি সেলিম ওসমানকে ধন্যবাদ, কৃতজ্ঞতা জানিয়েও শেষ করা যাবে না।

আজকে, যে পরিবর্তিত বন্দর দেখছেন, যে আধুনিক বন্দর হচ্ছে, তা আমাদের এমি সেলিম ওসমানের জন্য সম্ভব হচ্ছে। আর যেই রাস্তাটির কথা বলছেন, আমাদের এই এমপি না থাকলে এতো বড় চ্যালেঞ্জিং কাজ শুরুই করা যেত না। জমির উপর দিয়ে রাস্তা বের করা কঠিন কর্ম। এমপি সেলিম ওসমান সাহস করেছেন, অর্থ বরাদ্দ দিয়েছেন, আর আমি চেষ্টা চালিয়েছি, আলহামদুলিল্লাহ রাস্তাটি নির্মান করতে পেরেছি। এ রাস্তা হওয়াতে মানুষ যে সুফল পাচ্ছে, এবং আগামীতে এ জনপদ যে বৈপ্লবিক পরিবর্তন হবে, তাতেই আমি সন্তুষ্ট।

সূত্রঃ লাইভ নারায়াণগঞ্জ

নিউজটি শেয়ার করুণ