করোনা সচেতনতা বাড়াতে মাঠে নামলো জেলা পুলিশ,মেয়র ও এমপি’রা

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নারায়ণগঞ্জ জুড়ে আবার ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে মহামারী করোনা ভাইরাস। এক দিনের ব্যবধানে নতুন করে করোনা শনাক্ত করা হয়েছে ৪৩ জনের দেহে। বৈশ্বিক এই মহামারি থামাতে সব চেয়ে বেশি কার্যকর জনসচেতনতা। তাই নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ এবার প্রত্যক্ষভাবেই ‘মাঠে নামলো’ সচেতনা বৃদ্ধির লক্ষ্যে, তাদের অনুপ্রেরণায় এগিয়ে এলেন সিটির মেয়র ও সংসদ সদস্যরাও।

‘মাস্ক পরার অভ্যাস, করোনামুক্ত বাংলাদেশ’ প্রতিপাদ্য বাস্তবায়নে পুরো জেলাজুড়েই পথচারীদের মধ্যে মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও সাবান বিতরণ করে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ। তাদের এই আয়োজনে অংশ নেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভী, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের এমপি নজরুল ইসলাম বাবু, নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা ও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি একেএম সেলিম ওসমান।

২১ মার্চ (রবিবার) নারায়ণগঞ্জের ৫টি থানা ও পুলিশের বিশেষ শাখাগুলোর সবার পক্ষ থেকেই আলাদা আলাদা আয়োজন করেন।

শহরের চাষাড়ায় জেলা পুলিশের এ কর্মসূচি উদ্বোধন করেন ও বক্তব্য রাখেন মেয়র আইভী। এই আয়োজনে সভাপতিত্ব করেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম পিপিএম(বার)।

সেখানে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ শামীম বেপারী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(অপরাধ) টি এম মোশাররফ হোসেন, নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি), নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাব সভাপতি শাহ আলমসহ জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ।

মেয়র আইভী তার উদ্বোধনী বক্তব্যে জনগনের বন্ধু হওয়ার অনুরোধ জানান পুলিশকে। একই সাথে স্বীকার করেন বাংলাদেশ পুলিশের দক্ষতা ও কর্তব্যপরায়নতা। করোনাকালে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানবসেবা করায় তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতাজ্ঞাপন করেন মেয়র। সেখানে জেলা পুলিশ সুপার জনসাধারণকে উপদেশ দেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার। তিনি পথচারীদের মাঝে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করেন।

বিকেলে ফতুল্লার পঞ্চবটীতে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের আয়োজনের প্রধান অতিথি ছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি একেএম শামীম ওসমান।

তিনি পুলিশের প্রশংসা করে বলেন, করোনার মাঝখানে জনসাধারণের কল্যাণে পুলিশরা যা করেছে, তা আল্লাহ দেখেছে। আল্লাহ’র কাছে পুলিশ ও সাংবাদিকদের জন্য দোয়া চান তিনি। তবে দুঃখপ্রকাশ করেন, পুলিশ জনগনের সাহায্য করতে চাইলে তাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হয়। অনেকেই পুলিশের অযথা কঠোর সমালোচনা করেন যা ঠিক নয়।

আয়োজনের সভাপতিত্ব করেন ফতুল্লা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ রকিবুজ্জামান। বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (‘এ’ সার্কেল) মোঃ মেহেদী ইমরান সিদ্দিকী। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ফতুল্লা মডেল থানার সকল কর্মকর্তাবৃন্দ।

সোনারগাঁ থানা পুলিশের উদ্যোগে সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের এমপি ও জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-মহাসচিব লিয়াকত হোসেন খোকা।

সোনারগাঁ পুলিশের উদ্যোগে আয়োজিত ‘মাস্ক পরিধান সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন ২০২১’ এর একটি র‍্যালিও আয়োজন করা হয়। সেখানে সোনারগাঁ থানার ওসি রফিকুল ইসলামের তত্ত্বাবধায়নে জনসাধারণের মাঝে মাস্ক ও স্যানিটাইজার বিতরণ করা হয়।

আড়াইহাজারে থানা পুলিশের পক্ষ থেকে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় জনগণকে মাস্ক পরিধানে সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইনে প্রধান অতিথি ছিলেন নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের এমপি নজরুল ইসলাম বাবু। সেখানে আরও ছিলেন আড়াইহাজার থানার ওসি নজরুল ইসলামসহ অনেকে।

বন্দরে একই উদ্দেশ্যে করা হয় বিশাল আয়োজন, যার প্রধান অতিথি ছিলেন না

নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ (গোয়েন্দা শাখা)’র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহেদ পারভেজ চৌধুরী। রূপগঞ্জ থানা পুলিশের উদ্যোগে কাজী আব্দুল হামিদ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মাস্ক পরিধানে সচেতনতামূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়।

পুলিশের এই মহান উদ্যোগে তাদের অনুপ্রেরণা বাড়িয়েছেন নারায়ণগঞ্জের জনপ্রতিনিধিরা। পুলিশ যে আসলেই জনগনের বন্ধু, তা প্রমাণ করার সুযোগ এসেছে আরেকবার। কারণ আগামীতে করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হবে কি অবনতি, তা নির্ভর করছে জেলার জনপ্রতিনিধি, প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগের উপরেই। বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, জনপ্রতিনিধি, প্রশাসন, স্বাস্থ্যখাত ও সাধারণ জনগন সচেতন থাকলে সহজেই মোকাবেলা করা সম্ভব এই মহামারি। নয়তো সাধারণ সর্দি জ্বরের মত মৌসুমী রোগে পরিণত হতে পারে, প্রই বছর মারা যাবে দশ লক্ষ রোগী।

সুত্রঃ লাইভ নারায়ণগঞ্জ।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin