করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ: হাসপাতালের বাইরে ও অ্যাম্বুলেন্সেই চলছে চিকিৎসা

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

পেরিয়ে গেছে এক বছর। অথচ কোভিড আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসাসেবার মান কিংবা হাসপাতালের সক্ষমতা রয়ে গেছে অনেকটা আগের মতোই। রাজধানীতে একটি ফিল্ড হাসপাতাল খোলা হলেও তা বন্ধ হয়ে গেছে বেশ আগেই। জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শতকোটি টাকা খরচ করলেও তা ছিল অপরিকল্পিত তাই দুই সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও বাড়ছে না হাসপাতাল কিংবা বেডের সংখ্যা। তবে স্বাস্থ্য অধিদফতর অবশ্য বরাবরের মতো নানা আশ্বাসের বাণী শুনিয়ে যাচ্ছে।

ভেতরে সিট নেই তাই হাসপাতালের বাইরেই অক্সিজেন লাগিয়ে কিংবা অ্যাম্বুলেন্সে রেখেই চলছে কোভিড আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসাসেবা। সম্প্রতি অস্বাভাবিকভাবে করোনা রোগী বেড়ে যাওয়ায় রাজধানীর বেশির ভাগ হাসপাতালের চিত্রই এখন এমনটা দেখা যাচ্ছে।জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. রিদওয়ানুর রহমান সময় সংবাদকে বলেন, অদূরদর্শী পরিকল্পনা ও প্রয়োজনীয় উদ্যোগের অভাবে এক বছর পর এসেও জরুরি ভিত্তিতে হাসপাতালগুলো সক্ষমতা বাড়াতে পারছে না।

এখনও নিশ্চিত হয়নি সেন্ট্রাল অক্সিজেন ব্যবস্থা। যেখানে কোটি কোটি টাকা খরচ করে বানানো হয়েছিল ফিল্ড হাসপাতালও। তাও যেন লাপাত্তা।জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. রিদওয়ানুর রহমান আরো বলেন, সরকার যেগুলো করার কথা ছিল সেগেুলো অনেকটাই হয়নি। এখন কিন্তু এক বছর হয়ে গেছে। আমরা কিন্তু ভুলে গিয়েছিলাম করোনার কথা। ভুলে গিয়ে এগুলোর দিকে আর দৃষ্টি দেয়া হয়নি। হাসপাতালগুলো বন্ধ করে দিয়েছে। এমন সক্ষমতা থাকা উচিত ছিল যে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দরকার হলে সেটা আবার চালু করতে পারা। এখন দুই থেকে তিন সপ্তাহ চলে যাচ্ছে, এখনো কিছুই করতে পারছি না।

তিনি বলেন, এখন মানুষের চিকিৎসার জন্য হাহাকার চলছে। কিন্তু এগুলোর জন্য সরকার থেকে কিন্তু শত শত কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে, বসুন্ধরা বা অন্যান্য জায়গায়। কিছু অক্সিজেন সাপ্লাই দিতে পারি তাহলে কিছু মানুষকে বাঁচানো যাবে। দুই দিনের মধ্যে সম্ভব হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন লাইন দেয়া ।          স্বাস্থ্য অধিদফতরের মুখে সেই পুরনো সুর। বলছে, ঢাকায় ৭টি কোভিড বিশেষায়িত হাসপাতালের পাশাপাশি বানানো হচ্ছে ডিএনসিসি ফিল্ড হাসপাতালও যা চালু হবে ১০ দিনের মধ্যে।স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (হাসপাতাল) ডা. মো. ফরিদ হোসেন মিয়া বলেন, ডিএনসিসি ফিল্ড হাসপাতাল আগামী ১০ দিনের মধ্যে চালু করতে পারব। ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের আওতায় ইউনিসেফের তত্ত্বাবধানে আমাদের ৩০টা প্রতিষ্ঠানে অক্সিজেন লাইন লাগানোর কথা ছিল এবং অক্সিজেন সাপ্লাই দেয়ার কথা ছিল সে কাজটা এখনো হয়নি।    

সূত্র: সময় নিউজ টিভি

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin