করোনার দ্বিতীয় ওয়েভ আসতে পারে : জেলা প্রশাসক

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো. জসিমউদ্দিন বলেছেন, ‘মার্কেটগুলোতে আগেই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। কারণ সেকেন্ড ওয়েভ আসতে পারে। শীতকালে করোনা বাড়তে পারে। বাস্তবেও গত দুই মাস আগে দেখা যেতো এক সংখ্যায় যেমন ৮ জন ৯ জন করোনা শনাক্ত হতো। কিন্তু এখন ১৫ জন ১৬ জন। এটা একটু ভয়ের বিষয়। মার্কেটগুলোতে আগেই নির্দেশনা দেওয়া আছে। পূজোর জন্য আরো কঠোরভাবে থাকবে। কেউ না মানে তাহলে তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

২১ অক্টোবর বুধবার রাতে দুর্গোৎসবকে কেন্দ্র করে নারায়ণগঞ্জে করোনাভাইরাসের বিস্তার নিয়ন্ত্রণে মার্কেট ও বিপনী বিতানগুলোতে কোন ধরনের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে জানতে চাইলে নিউজ নারায়ণগঞ্জকে জেলা প্রশাসক এসব কথা বলেন।

এ প্রসঙ্গে গণসংহতি আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ জেলা সমন্বয়ক তরিকুল সুজন নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘যদি স্বাস্থ্যবিধি মানা না হয় তাজলে করোনা দ্বিতীয় দফায় ছড়িয়ে পড়তে পারে। আর যদি দ্বিতীয় দফায় ছড়িয়ে পরে তাহলে দেশের অর্থনীতির যে ভঙ্গুর অবস্থা আমারদের জন্য মোটেই ভালো হবে না।’

তিনি আরো বলেন, ‘এখনো আমাদের হাতে যথেষ্ট সময় আছে। দ্বিতীয় ওয়েভ শুরুর আগেই আমাদেরকে ব্যবস্থা নিতে হবে। এজন্য জেলা প্রশাসন সহ সকলকে ব্যাপক প্রচারণার মাধ্যমে জনগনের মাঝে এই কথা পৌঁছে দিতে হবে যে করোনার দ্বিতীয় ওয়েভ আসতে পারে। আর পূর্বপ্রস্তুতির জন্য এখন থেকেই সিনিয়রদের কথা ভাবতে হবে। তাঁদেরকে আলাদা করতে হবে। এছাড়া হাসপাতালগুলো থেকে তথ্য সংগ্রহ করে দেখতে হবে নগরবাসী কি ধরনের রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। সেই অনুযায়ী পরিকল্পনা করে এগোতে হবে।’

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ওয়েভের আশঙ্কা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীয় শেখ হাসিনা সহ দেশের শীর্ষ কর্তাব্যক্তিরা প্রকাশ করেছেন। এমন পরিস্থিতিতেই চলে এসেছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গোৎসব। এ উপলক্ষ্যে ক্রেতা সমাগম বৃদ্ধি পেয়েছে মার্কেট ও বিপনী বিতানগুলোতে। এই অবস্থায় করোনার দ্বিতীয় ওয়েভের কেন্দ্রবিন্দু হতে পারে এসব মার্কেট ও বিপনী বিতান। কিন্তু দুর্গোৎসবকে কেন্দ্র করে মার্কেটগুলোতে কোনো স্বাস্থ্যবিধি নির্দেশনা নেই বলে জানিয়েছে দোকান মালিক সমিতির সভাপতি। অপরদিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন দাবি করেছেন মার্কেটগুলোতে আগেই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি শাহজাহান নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘পূজা উপলক্ষ্যে প্রশাসনের পক্ষ থেকে আমাদের কোনো ধরণের নির্দেশনা দেওয়া হয়নি। আমরাও মার্কেটগুলোতে পূজা উপলক্ষ্যে নতুন কথা বলিনি।’

তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশ সরকার করোনার ব্যাপারে প্রথম দিকে যেভাবে সচেতনতা দেখিয়েছে এবং নির্দেশনা দিয়েছে এই মুহূর্তে আরে কিছুই নেই। পরিবহন সেক্টরগুলোতে দেখা গেছে দুইটি সীটে একটা লোক বসতো। যে কারণে ভাড়া বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল। পরবর্তী নির্দেশনায় সরকার সেই সিদ্ধান্ত উঠিয়ে নিয়েছে। স্বাভাবিক নিয়মে বাসগুলো চলেছে। মসজিদে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে নামাজের নির্দেশনা দেওয়া ছিল। সেগুলোও উঠে গেছে। এখন আমাদের মার্কেটগুলোতে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা রেখেছিলাম। দোকানদার যারা ছিল তাঁদেরকেও বলেছিলাম মাস্ক ব্যবহার করতে। হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে। নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে ক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে। এই ধরনের নির্দেশনা অনেক আগে থেকেই দেওয়া আছে। এখন সিজনের জন্য হয়তো অনেকে মানতে পারে না।’

সরেজমিনে দেখা যায়, পূজা উপলক্ষ্যে মার্কেট ও বিপনী বিতানগুলোতে ক্রেতা সমাগমে মুখরিত হয়ে উঠেছে। তবে স্বাস্থ্যবিধি মানার কোনো বালাই ক্রেতা বিক্রেতা কারো মধ্যেই নেই। গাদাগাদি করে ক্রেতারা মার্কেটগুলোতে ঘোরাঘুরি করছে। কারো কারো মুখে মাস্ক থাকলেও অনেকে মাস্ক ব্যবহার করছেন না।

লকডাউনে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর গত ১০ মে বেশ কয়েকটি স্বাস্থ্যবিধি নির্দেশনা দিয়ে মার্কেট খোলার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল। যেগুলোর মধ্যে অন্যতম ছিল যে মার্কেটগুলোর সামনে জীবাণুনাশক টানেল ও হাত ধোয়ার ব্যবস্থার নির্দেশ। ওই সময় সেগুলো স্থাপন করা হলেও এখন এসবের ব্যবহারও নেই। জীবাণুনাশক টানেল এবং হাত ধোয়ার বেসিনগুলো শো পিসের মত মার্কেটের সামনে পড়ে আছে। জীবাণুনাশক টানেল দিয়ে জীবাণুনাশক স্প্রে করা হচ্ছে না। হাত ধোয়ার বেসিনেও নেই সাবান পানি। একেবারেই স্বাভাবিক নিয়মেই চলছে মার্কেট ও বিপনী বিতানগুলো। এমতাবস্থায় মার্কেট থেকে দ্বিতীয় দফায় করোনা ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা প্রকাশ করছেন অনেকে।

এদিকে দেশে করোনার সেকেন্ড ওয়েভের আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। উভয়েরই দাবি শীতের মধ্যে করোনার সেকেন্ড ওয়েভ চলে আসতে পারে।

গত ২১ সেপ্টেম্বর সচিবালয়ে মন্ত্রীপরিষদ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত এক সভায় গণভবন থেকে অনলাইনে যুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী মাস কিংবা নভেম্বর থেকে দেশে করোনার ‘সেকেন্ড ওয়েভ’ শুরু হতে পারে। এ জন্য আগেই প্রয়োজনীয় সব প্রস্তুতি নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন।

এর আগে গত ১৮ সেপ্টেম্বর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন শীত মৌসুমে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ বা ‘সেকেন্ড ওয়েভের’ আশঙ্কা উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছেনা। এটা বিবেচনায় নিয়েই দ্বিতীয় দফা সংক্রমণ মোকাবেলায় প্রস্তুতি নিয়ে রাখা হচ্ছে।’

উল্লেখ্য, নারায়ণগঞ্জে ২১ অক্টোবর বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ জেলায় করোনাভাইরাসে সংক্রমিত ৭ হাজার ২৫ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ১৮৪ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। করোনায় সংক্রমিত ২১ জন শনাক্ত হয়েছে। কারো মৃত্যু ঘটেনি। সুস্থ হয়েছেন ১৮ জন। এ নিয়ে জেলায় ৪৭ হাজার ৯৬৩ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এখনো পর্যন্ত জেলায় মৃত্যুর সংখ্যা ১৪৫ জন। জেলায় মোট সুস্থ হয়েছেন ৬ হাজার ৬৯৯ জন।

সূত্রঃনিউজ নারায়ণগঞ্জ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin