করোনাভাইরাস: মধ্যরাত থেকে রূপগঞ্জ অবরুদ্ধ

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

করোনাভাইরাসের সংক্রমণে ঝুঁকি থাকায় নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ ইউনিয়নকে অবরুদ্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে ‘করোনা প্রতিরোধ কমিটি।’

বৃহস্পতিবার জেলার করোনা প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজ বলেন, সংক্রমণ বেশি হওয়ায় ওই ইউনিয়ন লকডাউন করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

দুপুরে উপজেলার সদর ইউনিয়দ পরিষদ অডিটোরিয়ামে ডিসি জসিম উদ্দিন জানান, নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার রূপগঞ্জ ইউনিয়নে বৃহস্পতিবার রাত ১২টার পর থেকে এই লকডাউন কার্যকর হবে।

“আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় এ উপজেলাকে করোনার রেডজোন হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। এ কারণে সদর ইউনিয়ন লকডাউন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

“আগামী ১৪ দিন প্রয়োজনে ২১ দিন পর্যন্ত লকডাউন রাখা হবে।”

তিনি বলেন, ইউনিয়নে ওষুধের দোকান ছাড়া সব দোকানপাট বন্ধ থাকবে। সদর ইউনিয়নের চাকরীজীবীরা সাধারণ ছুটির আওতায় থাকবে। তবে তারা তাদের প্রতিষ্ঠান থেকে পুরো বেতন পাবেন।

“তাদের নিত্যপ্রয়োজনী খাদ্য সামগ্রী বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হবে। লকডাউন চলাকালিন কেউ অসুস্থ হলে তাদের সেবা দিতে মেডিকেল টিম পৌঁছে যাবে।” 

জেলা পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম বলেন, লকডাউন কঠোরভাবে পালন করতে পুলিশ মাঠে কাজ করবে। 

সদর ইউনিয়নের প্রবেশের তিনটি পয়েন্ট কাঞ্চন, নীলা মার্কেট ও কায়েতপাড়া পয়েন্টে চেকপোস্ট বসছে। পুলিশের টহল ও প্রশাসনের সমন্বয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে।

এ সভায় রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মমতাজ বেগম সভাপতিত্ব করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, রূপগঞ্জ উপজেলায় ৬৪২ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে, তাদের দুই জনের মৃত্যু হয়েছে।  আক্রান্তদের মধ্যে রূপগঞ্জ সদর ইউনিয়নে আক্রান্তের সংখ্যা ৭৭ জন।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin