কঠোর লকডাউনের তৃতীয় দিনে না.গঞ্জে প্রশাসনের কঠোর অবস্থান

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

ঈদুল আযহার পরে চলমান কঠোর লকডাউনের তৃতীয় দিনে জেলার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন স্থানে প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কঠোর উপস্থিতি দেখা গেছে। বিনা কারনে রাস্তায় বের হওয়া নগরবাসীকে পুলিশি জেরার মুখে পড়তে হয়েছে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে জরিমানাও গুনতে হয়েছে নগরবাসীকে।

আজ শনিবার (২৪ জুলাই) চলমান লকডাউনের তৃতীয় দিনে জেলার বিভিন্ন স্থান ঘুরে দেখা গেছে প্রশাসনের কঠোর উপস্থিতি। কাক ডাকা ভোরে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এবং সিভিল প্রশাসনের লোকজনের উপস্থিতি কম থাকলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথে বাড়ে তাদের উপস্থিতি। নগরীর প্রাণকেন্দ্র চাষাড়ায় দুপুর ১১টায় গিয়ে দেখা যায় একজন নির্বাহী মেজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে পুলিশ, আনসার ও বিজিবির সদস্যরা দায়িত্বপালন করছে। তাদের সাথে সেনাবাহিনীর সদস্যদেরও দায়িত্ব পালন করতে দেখা যায়। বিনা কারনে কাউকে বের হতে দেখলে তাদেরকে জেরা করছে কর্তব্যরত পুলিশ।

বিনা কারনে বের হওয়া অনেককে জ রিমানা করতে দেখা গেছে চাষাড়ায়। গনপরিবহন বন্ধ থাকায় কেবল পায়ে চালিত রিকশাই দেখা গেছে নগরীর প্রানকেন্দ্রে। দায়িত্বরত এক পুলিশ কর্মকর্তা নারায়ণগঞ্জ বুলেটিনকে জানান, ‘চলমান লকডাউনকে সফল করতে পুলিশ সর্বাত্মক চেষ্টা করবে। বিনা কারনে বাসা থেকে কেউ বের হলে গুনতে হবে জরিমানা’।


এছাড়া জেলার সাইনবোর্ড, নিতাইগঞ্জ, শিবুমার্কেট, পঞ্চবটী ও নতুন কোর্ট এলাকায়ও আইন শৃনঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কঠোর উপস্থিতি ছিল লক্ষ্যনীয়। জেলার সাথে অন্য সকল জেলার স্থল ও নৌ যোগাযোগ ছিল বিচ্ছিন্ন। এছাড়াও জেলার বন্দর খেয়াঘাট, নবীগঞ্জ গুদারাঘাট সহ প্রায় অধিকাংশ খেয়া পারাপার ছিল বন্ধ। মূল সড়ক গুলোতে কঠোর লকডাউন পালিত হলেও জেলার অলি-গলি আর মহল্লাগুলোতে ছিল মানুষের স্বাভাবিক চলাচল।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin