এসপি’র নির্দেশে মোস্তাফিজের তত্বাবধায়নে বদলে গেছে নিতাইগঞ্জ

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নিতাইগঞ্জ, নামটির সাথে জড়িত নারায়ণগঞ্জের হাজারো মানুষের জীবন ও জীবিকা। একই সাথে নারায়ণগঞ্জ-মুন্সিগঞ্জের অন্যতম সংযোগ সড়ক। এই সড়কটির নাম আসলেই নারায়ণগঞ্জবাসীর মনে পড়ে দীর্ঘ যানজটের কথা। ঘন্টার পর ঘন্টা মালবাহী ট্রাকের সিরিয়াল এবং অবৈধ পার্কিংয়ে সরু হয়ে যাওয়া সড়কে সৃষ্টি হতো প্রতিনিয়তই যানজট। কিন্তু নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার(এসপি) মোহাম্মদ জায়েদুল আলমের নির্দেশনায় ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(প্রশাসন) মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমানের তত্বাবধায়নে অনেকাংশেই বদলে গেছে নিতাইগঞ্জ সড়কের পরিস্থিতি।

৪ অক্টোবর (রবিবার) নিতাইগঞ্জ সড়ক সরেজমিনে দেখা যায়, রাস্তার দু’পাশে সারিবদ্ধভাবে এক লাইনে মালবাহী ট্রাক। একই সাথে লোড করার সাথে সাথেই গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওনা হচ্ছে ট্রাকগুলো।

এ ব্যাপারে স্থানীয় এক লোড-আনলোড শ্রমিক বলেন, আগের চেয়ে কিছুটা স্বস্তিতেই রয়েছি। আগে গাড়িতে মাল তুলতে গেলে অনেকে এসে বাধা দিতো, তুলতে দিতো না। তারা টাকা নিতো তারপর তুলতে হতো। কয়েকদিন আগে এসপি এসেছিলেন তারপর থেকে এখন ভালোই আছি।

মুন্সিগঞ্জ থেকে আগত এক অটোরিকশা চালক বলেন, সন্ধ্যার পর পরই এ এলাকায় দীর্ঘ যানজট লেগে থাকতো। গত ২-৩ দিন ধরে যানজট অনেকটা নেই বললেই চলে। আগের চেয়ে ট্রিপ বেশি মারতে পারি, এ ধারা অব্যাহত থাকলে আমাদের সকলের জন্যই মঙ্গল হবে।

এর আগে, বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) নিতাইগঞ্জে ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার(এসপি) মোহাম্মদ জায়েদুল আলম বলেছিলেন, আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)ও তার সহধর্মীনি হযরত খাদিজা (রা.) ব্যবসা করতেন। এই ব্যবসা করাটা আমি মনে করি ধর্মের কাজ। এটা মানুষের সেবার কাজ, এটা ইবাদত হিসেবে নিতে হবে। করোনার মধ্যে নিতাইগঞ্জ থেকে আপনারা যে পরিমান পূরন দিয়েছেন, যে পরিমান কাজ করেছেন, যার কারনে আমি মনে করি দেশের ভোজ্য পন্যের দাম বাড়ে নাই। এটা সম্ভব আমি মনে করি এই নিতাইগঞ্জ এর ব্যবসায়ী সমাজ ও শ্রমিক সমাজ। আমরা দেখেছি এই নিতাইগঞ্জে কখনও এক লেনে ট্রাক থাকে, কখনো ২ লেনে, আবার কখনো ৩ লেনে। কখনো পুরো রাস্তা জুড়ে থাকে। এটা আমাদের ব্যবস্থাপনা। আমাদের ম্যানেজমেন্ট এর ত্রুটির জন্য আমি কাউকে দোষারোপ করবো না। সিস্টেম যদি না থাকে সেখানে কোনো কিছুতেই কাজ হয় না। আমরা চাচ্ছি এটা সিস্টেমে নিয়ে একটা ব্যবস্থাপনায় যেতে, যদি এই ব্যবস্থাপনা সঠিক ভাবে কাজ করে তাহলে আমরা এটায় বহাল থাকবো। যদি ব্যবস্থাপনা চেঞ্জ করতে হয় তাহলে করবো।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(প্রশাসন) মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, এসপি স্যার নিতাইগঞ্জকে ঐতিহ্যবাহী করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে যুগান্তকারী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন, তিনি চেয়েছেন যাতে পরিবর্তন হয়। এরই অংশ হিসেবে ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের উদ্বোধন করেছেন এসপি জায়েদুল আলম। এলাকাটিকে সার্বক্ষণিক তত্বাবধানের দায়িত্ব দিয়েছেন তিনি, আমি নিয়মিত এলাকাটিকে পর্যবেক্ষণ করছি। একইসাথে থানা-ট্রাফিক পুলিশসহ সেখানকার ট্রাফিক ম্যানেজমেন্টের লোকদের দ্বারা যানজট ও চাঁদাবাজি মুক্ত করতে কাজ করে যাচ্ছি।

সূত্রঃলাইভ নারায়ণগঞ্জ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin