‘এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ’ এক দীপ্তিময় আলোকবর্তিকার আলোর বিচ্ছুরণের ২৫ বছর

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

ক্যাম্পাস ভিত্তিক শিক্ষার পাশাপাশি দূরশিক্ষণের মাধ্যমে মূল্যবোধ সমন্বিত শিক্ষাকে স্বল্প খরচে গোটা এশিয়া ব্যাপী ছড়িয়ে দেয়ার লক্ষ্যে ১৯৯৬ সালের ৪ জানুয়ারি যাত্রা শুরু করে এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ।দরিদ্র ও মধ্যবিত্ত পরিবারের ছাত্রদের উচ্চশিক্ষার স্বপ্ন সফল করার উদ্দেশ্যে এক দীপ্তিময় আলোকবর্তিকা হিসেবে আলো ছড়িয়ে যাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়টি।

প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে মানসম্মত শিক্ষাদানে প্রতিষ্ঠানটি দেশের প্রথম সারির বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে অন্যতম। পাঁচটি অনুষদ ও ১৩ টি বিভাগে ২৯৫ জন শিক্ষার্থী নিয়ে এর যাত্রা শুরু হলেও কয়েক বছরের মধ্যে ২০০৯ সালে এই সংখ্যা পেরিয়েছে ১৫০০০। শুধু বাংলাদেশী নয় বিদেশী শতাধিক শিক্ষার্থী অত্যন্ত কৃতিত্বের সাথে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগ থেকে উচ্চতর ডিগ্রি অর্জন করেছে এবং এখনো অধ্যায়নরত আছে শতাধিক শিক্ষার্থী। বিশ্ববিদ্যালয়টি বর্তমানে স্থায়ী ক্যাম্পাস ভিত্তিক শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

ঢাকার অদূরে আশুলিয়াতে ১৫ একর জমিতে সবুজ শ্যামল মনোরম পরিবেশে এর স্থায়ী ক্যাম্পাস অবস্থিত। যেখানে শিক্ষার্থীদের জন্য আবাসিক হোস্টেলের পাশাপাশি অনাবাসিক শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে নিজস্ব ট্রান্সপোর্ট সুবিধা। গরিব, সুবিধাবঞ্চিত ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য বিভিন্ন ধরনের শিক্ষাবৃত্তি ছাড়াও স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণকারী বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানদের জন্য সম্পূর্ণ বিনা খরচে অধ্যায়নের সুবিধা রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে। করোনার এই সংকটকালীন সময়ে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের আদেশক্রমে বাংলাদেশ রিসার্চ এন্ড এডুকেশন নেটওয়ার্ক এ প্রতিষ্ঠিত জুম অ্যাপ এর মাধ্যমে অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম যথাযথভাবে চালিয়ে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

এছাড়া বিভিন্ন ধরনের ওয়ার্কসপ, ওয়েবিনার ও দিবস ভিত্তিক বিভিন্ন অনুষ্ঠান নিয়মিত উদযাপন করছে অনলাইনের মাধ্যমেই। এই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করে অনেক শিক্ষার্থী দেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পর্যায়ে ভূমিকা রাখার সাথে সাথে বিদেশে তাদের জ্যোতি ছড়াচ্ছে|

অনেকেই বিদেশে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন। অত্যন্ত আনন্দের সংবাদ হল বাংলাদেশের ২৫ বছর বয়সে জন্মগ্রহণকারী স্বনামধন্য এই বিশ্ববিদ্যালয়টি আগামী ২০২১ সালের ৪ জানুয়ারি নিজেই ২৫ বছর পূর্ণ করতে যাচ্ছে। অভিনন্দন এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ , অভিনন্দন প্রতিষ্ঠানটির স্বপ্নদ্রষ্টা ও প্রতিষ্ঠাতা উপাচার্য প্রফেসর ইমেরিটাস ড. আবুল হাসান মোহাম্মদ সাদেক স্যারকে, অভিনন্দন এই বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা এবং কর্ম কর্মচারী গনকে।

এই বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন সদস্য হতে পেরে আমি গর্বিত ও আনন্দিত। আরো শত শত হাজার হাজার বছর উচ্চশিক্ষায় আলোকবর্তিকা হয়ে দিকে দিকে আলো ছড়িয়ে যাক এবং লক্ষ লক্ষ যুবকের উচ্চশিক্ষার স্বপ্ন পূরণের মাধ্যম হিসেবে বেঁচে থাকুক প্রিয় এই বিদ্যাপীঠটি।

লেখক: নূরুন নাহার আঁখি ,প্রভাষক অর্থনীতি বিভাগ ,এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin