এনায়েতনগরে প্রকাশ্যে জবাই করে হত্যা

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

জেলার সদর উপজেলার এনায়েতনগরে বাড়ি থেকে ডেকে এনে সুজন ফকির (৪২) নামে এক ব্যক্তিকে প্রকাশ্যে জবাই করে হত্যা করার হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে ।

আজ শনিবার (১৬ অক্টোবর) সকাল আটটার দিকে এনায়েতনগরের মুসলিম নগর নয়া বাজার এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। হত্যাকাণ্ডের শিকার সুজন ফকির উপজেলার নবীনগর শাহ্ আলমের বাড়িতে পরিবারসহ বসবাস করছিলো। তিনি নাটোরের গুরুদাসপুর রামাগাড়ি গ্রামের আমাজাদ হোসেন টগরের ছেলে।

নিহতের স্ত্রী মর্জিনা বেগম জানান, স্বামী স্ত্রী ও এক ছেলে, এক মেয়ে নিয়ে আমাদের পরিবার। সুজন ফতুল্লার বিসিকে রহনা নামে একটি গার্মেন্টে কাজ করতেন। কিছুদিন আগে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাই চাকরি ছেড়ে কয়েকদিন আগে ভাড়ায় ইজিবাইক চালানো শুরু করেন।

হত্যার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. রকিবুজ্জামান। তিনি এই হত্যাকাণ্ডটিকে পরিকল্পিত আখ্যায়িত করে বলেন, সুজন ফকির আগে গার্মেন্টে কাজ করতেন। পলিপাসের অপারেশনের কারণে সে কাজ ছেড়ে দিয়ে আগেরদিনএকটি মিশুক কিনেন নিজে চালাবেন বলে। আজ সকাল সাড়ে সাতটার দিকে একটি ফোন পেয়ে তিনি বাসা থেকে বের হন। কিন্তু গ্যারেজ থেকে গাড়ি বের করেন নি।

ওসি আরো জানান, স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বলে আমরা জানতে পেরেছি একটি মিশুকে করে সুজন ফকিরসহ তিনজন আসে। এই দুজন সুজন ফকিরকে জবাই করে হত্যা করে,লাশ ফেলে রেখে যায়। পরে পুলিশ খবর পেয়ে মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছি। খুনিদের চিহ্নিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। তাদের শিগগিরই গ্রেফতার করা হবে জনান তিনি।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin