একদিনে ৭ লাশের খবর পেলো না.গঞ্জ বাসী

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নারায়ণগঞ্জে ২৩ অক্টোবর শুক্রবার একদিনে সাতজনের মৃত্যু ও লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আড়াইহাজারে একজন নববধূ আত্মহত্যা করেন। এছাড়া সেখানে একজন হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। এছাড়া রূপগঞ্জে আরো তিন মৃত্যু ঘটেছে। বন্দরে ভাড়াটিয়া খুন ও সিদ্ধিরগঞ্জে একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

বন্দরে খুন

বন্দরে বকেয়া ঘরভাড়া নিয়ে বিরোধের জের ধরে হামলায় ২ সন্তানের জনক ও মাছ বিক্রেতা ফয়েজ মিয়ার (৪২) মৃত্যু ঘটেছ। ২৩ অক্টোবর শুক্রবার সকাল ১০টায় পুরান বন্দর প্রধানবাড়ীস্থ মিছির আলী মিয়ার ভাড়াটিয়া ঘরে এ ঘটনাটি ঘটে।এ ঘটনায় পুলিশ বাড়িওয়ালা উম্মে কুলসুম (৫৫), ভাড়াটিয়া মহিউদ্দিন (৪২) ও তার স্ত্রী শিরিনা বেগমকে (৩৭) আটক করেছে।এ ব্যাপারে নিহতের স্ত্রী রোজিনা বেগম বাদী হয়ে বন্দর থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চালাচ্ছে।এ ব্যাপারে নিহতের স্ত্রী রোজিনা বেগম বাদী হয়ে বন্দর থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চালাচ্ছে।

নিহত ফয়েজ মিয়ার ভায়রা সোহেল রানা গনমাধ্যমকে জানিয়েছে, মুন্সিগঞ্জ জেলার গজারিয়া থানার চরবলাকি এলাকার মৃত আবুল হোসেন মিয়ার ছেলে ফয়েজ মিয়া ও তার পরিবার দীর্ঘ ৩ বছর ধরে পুরান বন্দর প্রধানবাড়ী এলাকার মিছির আলী মিয়ার বাড়ীতে ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করে আসছে।করোনা জন্য ব্যবসা মন্দ থাকার কারণে ৭ মাসের বকেয়া ঘর ভাড়া জমে যায়। সময় মত ঘর ভাড়া দিতে না পারায় এ নিয়ে গত ২২ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাড়িওয়ালা উম্মেকুলসুমের সাথে ফয়েজ মিয়ার স্ত্রী রোজিনা বেগমের কথা কাটাকাটি হয়।

ওই সময় রোজিনা বেগম বকেয়া ঘর ভাড়া ৭ হাজার টাকার মধ্যে ৪ হাজার টাকা প্রদান করে। তারপরও উম্মেকুলসুম ঘর ভাড়া বিষয়ে অপর ভাড়াটিয়া মহিউদ্দিন ও তার স্ত্রী শিরানা বেগমকে জানায়।

শুক্রবার সকালে ঘর ভাড়াকে কেন্দ্র করে ভাড়াটিয়া মহিউদ্দিন ও মাছ বিক্রেতা ফয়েজ মারামারিতে জড়িয়ে পরে। ওই সময় মহিউদ্দিন ও তার স্ত্রী শিরিনা বেগম মিলে ফয়েজকে এলোপাথারী ভাবে কিলঘুসি মেরে আহত করে। পরে স্থানীয় মুমুর্ষ অবস্থায় ফয়েজকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ফয়েজকে মৃত ঘোষনা করে।

আড়াইহাজারে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার

১৬ অক্টোবর শুক্রবার পারিবারিক ভাবেই মাহমুদপুর ইউনিয়নের কল্যান্দী বিলপাড় এলাকার প্রবাসী মো: সেলিম মিয়ার ছেলে আলআমিন এর সাথে ফতেহপুর ইউনিয়নের কায়েমপুর এলাকার প্রবাসী মোক্তার হোসেনের মেয়ে মুক্তা আক্তারের শুভ বিবাহ সম্পন্ন হয়। ওরা সম্পর্কে ছিল মামাতো ভাই-বোন। একে অপরকে পছন্দ করতো।

ঘটনা সম্পর্কে মুক্তার মা বলেছে, মুক্তা তার স্বামী আল আমিনকে (২৪) নিয়ে বৃহস্পতিবার শ্বশুর বাড়ি থেকে পিত্রালয়ে বেড়াতে আসে। সারাদিন তারা ছিল হাসি খুশি। স্বামীর সাথে মুক্তা নানান খুনশুটিও করেছে। তাদের বিয়ে হয়েছে গত শুক্রবার (১৬ অক্টোবর)। সবাই বলেছে ওরা সুখী দম্পতি। মামাতো ভাই-বোন হলেও ওরা একে অপরকে পছন্দ করতো। দিন শেষে রাত ৮ টা নাগাদ মুক্তা বিষপান করে শুয়ে থাকে। স্বামী আলআমিন ঘরে ঢুকে এই অবস্থা দেখে ভরকে যায়। সে সকলকে ডেকে আনে। মুক্তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়। কিন্তু অবস্থার কোন উন্নতি হচ্ছিল না। ঢাকায় রেফার্ড করে। সকালে ঢাকায় নেয়ার পথেই মুক্তার মৃত্যু ঘটে।

সিদ্ধিরগঞ্জে গৃহবধূর মরদেহ

নারায়ণগঞ্জ মহানগরের সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইল ধনকুন্ডা ক্যানেলপাড় এলাকার সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় নূরজাহান বেগম (৩৭) নামের গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। স্বামীর সাথে কলহের জের ধরে সে আত্মহত্যা করেছে ধারণা পুলিশের।

ভাইয়ের হাতে ভাই খুন

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলায় ২৩ অক্টোবর শুক্রবার বিকেলে উপজেলার ব্রাহ্মন্দী ষাড়পাড়া গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ছোট ভাইয়ের ইটের আঘাতে বড় ভাই নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় ছোট ভাইয়ের স্ত্রীকে আটক করেছে পুলিশ।নিহত ফজলুল হক (৬৫) একই গ্রামের মৃত গণি মিয়ার ছেলে।

আড়াইহাজার থানার ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, ‘বিকেলে ঝড়ে বাড়িতে কলাগাছ পরে বড় ভাই ফজলুল হকের ব্যবহৃত প্লাস্টিকের বালতি ভেঙে যায়। এজন্য সে তার ছোট ভাই এবাদুল্লাহকে নতুন বালতি কিনে দিতে বলেন। এর ক্ষোভে ছোট ভাই এবাদুল্লাহ (৫৫), তার স্ত্রী সেলিনা বেগম (৫০) ও ছেলে সাকিব (২২) মিলে ফজলুল হককে মারধর করে। ওইসময় ছোট ভাই এবাদুল্লাহ বড় ভাই ফজলুল হকের মাথায় ইট দিয়ে আঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলে মারা যায় ফজলুল হক।’

স্টিল মিলে নিহত ২

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে প্রিমিয়ার স্টিল মিলস নামে একটি কারখানায় গলিত লোহার আগুনে দুর্ঘটনাবশত দগ্ধ হয়ে মিজানুর রহমান ও ফাহিম নামে দুই শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় দগ্ধ হয়েছেন আরো চারজন। ২২ অক্টোবর বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার বরপা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থলে মিজানুর রহমানের মৃত্যু হলেও শুক্রবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় ফাহিমের মৃত্যু হয়েছে ধানমন্ডি এলাকার একটি হাসপাতালে। দগ্ধরা হলেন শাকিল, রফিক মিয়া, রাজু ও আবু সিদ্দিক মিয়া।বিষয়টি নিশ্চিত করে রূপগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জসিম উদ্দিন বলেন, ভোরে উপজেলার বরপা এলাকার প্রিমিয়ার স্টিল মিলস নামক কারখানায় রাত আড়াইটার দিকে কাজ করার সময় উত্তপ্ত গলিত লোহার আগুনের শিখা শ্রমিকদের দিকে ছিটকে এলে দগ্ধ হয়ে শ্রমিক মিজানুর রহমানের মৃত্যু হয়।

নিহত মিজানুর রহমান চুয়াডাঙ্গা জেলার একই থানার আলোদিয়ার বাজার এলাকার শাহজাহান মিয়ার ছেলে।ঢাকা মেডিক্যাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (ইন্সপেক্টর) বাচ্চু মিয়া জানান, রূপগঞ্জের ঘটনায় দগ্ধ ফাহিম ধানমন্ডি এলাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল জরুরি বিভাগে আনলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।শুক্রবার দুপুরে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার

রূপগঞ্জে অজ্ঞাত এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার ২৩ অক্টোবর সকালে ঢাকা সিলেট মহাসড়কের বড় বলাইখাঁ এলাকা থেকে এ লাশ উদ্ধার করা হয়।ভুলতা ফাঁড়ির ইনচার্জ আনিসুর রহমান জানান, শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে ঢাকা সিলেট মহাসড়কের বড় বলাইখাঁ এলাকায় অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়।খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশটি উদ্ধার করে। লাশটির শরীর ও চোখের উপরের কয়েকটি স্থানে ক্ষত চিহ্ন পাওয়া গেছে।

প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে অজ্ঞাত স্থানে হত্যা করে লাশটি এখানে ফেলে রেখে গেছে। লাশটি ময়না তদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ মর্গে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্টটি লেখা পর্যন্ত নিহতের নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি।

সূত্রঃ নিউজ নারায়ণগঞ্জ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin