ইমরানের বাউন্সারে ধরাশায়ী বিরোধী জোট, আগাম নির্বাচনের ডাক

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

আবারো নাটকীয় মোড় নিলো পাকিস্তানের রাজনীতি। নানা আলোচনার পর পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে আনা অনাস্থা প্রস্তাব খারিজ করেছে পার্লামেন্ট। অনাস্থা প্রস্তাবকে অসাংবিধানিক ঘোষণা করেন পার্লামেন্টের ডেপুটি স্পিকার কাসিম সুরি। এরপরই আগাম নির্বাচনের ডাক দিয়ে জাতির উদ্দেশে ভাষণে ইমরান খান বলেন, ঘাবড়ানা নেহি হ্যায়।

যে অনাস্থা ভোটে নিশ্চিত হারের মুখে দাঁড়িয়ে ছিলেন ইমরান, ঘটনাক্রমে দেখা গেল, সেই অনাস্থা ভোটই হলো না। তাহলে কি শেষ ওভারে ইমরানের বাউন্সারে ধরাশায়ী সম্মিলিত বিরোধীরা? ইসলামাবাদের ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির গতিপ্রকৃতি তেমনই ইঙ্গিত দিচ্ছে।

প্রেসিডেন্টের সঙ্গে দেখা করে ইমরান দাবি জানালেন, অ্যাসেম্বলি ভেঙে দিয়ে নতুন করে ভোট ঘোষণার। অন্যদিকে বিরোধীরা সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার তোড়জোড় শুরু করেছে।

পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট আরিফ আলভির কাছে ইমরান দাবি জানিয়েছেন, অ্যাসেম্বলি ভেঙে দেয়ার এবং দেশে নতুন করে সাধারণ নির্বাচন ঘোষণার।

জাতির উদ্দেশে ভাষণে ইমরান খান দেশবাসীর কাছে ভোটের জন্য তৈরি হওয়ার আবেদন রাখেন। তিনি বলেন, ঘাবড়ানা নেহি হ্যায়। আল্লাহ উপর থেকে পাকিস্তানের উপর নজর রেখে চলেছেন। তিনি দেখছেন, কীভাবে তার সরকার ফেলতে বিরোধীরা পাকিস্তানের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করছে। এরপরই ইমরান বলেন, দেশবাসীই স্থির করুন, তারা কাকে ক্ষমতায় দেখতে চান।

বিরোধীদের শক্ত অবস্থানের পরও উতরে গেলেন ইমরান খান। এদিন অধিবেশনের শুরুতেই বিদেশি সমর্থনে ইমরান খানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেন পাকিস্তানের তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী। এসময় ৫ নম্বর অনুচ্ছেদের আওতায় এই প্রস্তাবকে অসাংবিধানিক ঘোষণার আহ্বান জানান তিনি। এরপরই অনাস্থা প্রস্তাব খারিজ করেন পার্লামেন্টের ডেপুটি স্পিকার কাসিম সুরি।

বিশেষ এই অধিবেশনের নেতৃত্ব দেয়ার কথা ছিলো স্পিকার আসাদ কাইসারের। তবে অধিবেশন শুরুর আগেই স্পিকারের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব আনা হলে দায়িত্ব দেয়া হয় ডেপুটি স্পিকার কাসিম সুরিকে।

পার্লামেন্টের সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছেন ইমরান খান। অনাস্থা ভোটের প্রস্তাব খারিজ হওয়ার পর জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে আগাম নির্বাচনের ঘোষণা দেন তিনি। এসময় প্রেসিডেন্ট আরিফ আলভির প্রতি পার্লামেন্ট ভেঙে দেয়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন বলেও জানান ইমরান।

ইমরান খান বলেন, পাকিস্তান পার্লামেন্টের আজকের এই সিদ্ধান্ত গণতন্ত্রের জয়। বিদেশী মদদে সরকার উৎখাতের যে যড়যন্ত করা হয়েছিলো তা ভেস্তে গেছে। এই জয় গোটা দেশের ২২ কোটি জনগনের। তাদের সকলকে আমি সাধুবাদ জানাই।

এদিকে, ডেপুটি স্পিকারের এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে স্লোগান দিতে থাকে বিরোধী শিবির। এসময় ইমরান খানের সরকারের বিরুদ্ধে সংবিধান লঙ্ঘের অভিযোগ তোলেন পাকিস্তান পিপলস পার্টির প্রধান বিলাওয়াল ভুট্টো।

এর আগে, অনাস্থা ভোটকে কেন্দ্র করে যেকোন অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে রাজধানীতে জারি করা হয় ১৪৪ ধারা। পার্লামেন্ট ভবনের বাইরে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অভিযোগে পিটিআইয়ের ৩ কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin