ইউটিউব থেকে এক বছরে রায়ানের আয় ২৫১ কোটি!

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

চলতি বছরের সবচেয়ে বেশি আয়কারী ইউটিউবারদের তালিকার শীর্ষস্থানে রয়েছে ৯ বছর বয়সী রায়ান কাজী। ২০২০ সালে ইউটিউব থেকে সে আয় করেছে ২৯.৫ মিলিয়ন ডলার বা ২৫১ কোটি টাকা।

অবশ্য যারা রায়ান সম্পর্কে জানেন, তাদের কাছে রায়ানের এ কীর্তি নতুন নয়। কেননা ২০১৮ সালেও শীর্ষ আয়কারী ইউটিউবারের তকমা জিতে নিয়েছিল রায়ান। এমনকি তার আগের বছর অর্থাৎ ২০১৭ সালে যখন তার বয়স সবেমাত্র ৭ বছর, তখনও ইউটিউব থেকে আয়ে সবাইকে পেছনে ফেলে দিয়েছিল রায়ান। ২০১৯ সালে ইউটিউব থেকে রায়ান আয় করেছিল ২৬ মিলিয়ন ডলার বা ২২১ কোটি টাকা।

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের বাসিন্দা রায়ান আয়ে শীর্ষ ইউটিউবারদের শীর্ষস্থানটা টানা তৃতীয়বারের মতো দখলে রেখেছে।

ফোবর্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রায়ানের বয়স যখন মাত্র তিন বছর তখন তার বাবা-মা ইউটিউবে তাকে ‘রায়ানস টয়েস রিভিউ’ নামের চ্যানেল খুলে দেয়। পরবর্তীতে চ্যানেলটির নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় ‘রায়ানস ওয়ার্ল্ড’। বর্তমানে চ্যানেলটির সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা ৪ কোটি ১৭ লাখ। তার আসল নাম রায়ান গুয়ান। 

গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এ বছর ইউটিউব থেকে ২৯.৫ মিলিয়ন ডলার বা ২২১ কোটি টাকা আয় ছাড়াও, নিজস্ব ব্র্যান্ডের খেলনা ও পোশাক এবং মার্কস অ্যান্ড স্পেন্সার ব্র্যান্ডের পায়জামা থেকে রায়ানের আয় হয়েছে আনুমানিক ২০০ মিলিয়ন ডলার বা ১ হাজার ৭০০ কোটি টাকা। এছাড়া নিকেলোডিওন টিভি চ্যানেল তার সঙ্গে কয়েক মিলিয়ন ডলারের চুক্তি করেছে। তবে চুক্তির অঙ্কটা প্রকাশ করা হয়নি। চ্যানেলটি নিজস্ব টিভি সিরিজ প্রচারের জন্য রায়ানকে মোটা অঙ্কেই রাজি করিয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

সবচেয়ে বেশি আয় করা ইউটিউবারের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের ২২ বছর বয়সী ইউটিউবার জিমি ডোনাল্ডসন। তার ইউটিউব চ্যানেলের নাম ‘মি. বিস্ট’। ইউটিউব থেকে এ বছর তিনি আয় করেছেন ২৪ মিলিয়ন ডলার।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin