আলীরটেক ইউনিয়নের কুড়েরপাড়, ভ্রমন পিপাসুদের নতুন ঠিকানা

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার আলিরটেক ইউনিয়ন এর অদূরে ইছামতী নদীর কোল ঘেষে অপরূপ প্রাকৃতিক পরিবেশে দাঁড়িয়ে আছে কুড়েরপাড়।

গোধূলির ঠিক আগ মুহূর্তে নব্বই দশকের আবহমান বাংলার গ্রামীন রূপ ফুটে ওঠে কুড়েরপাড়ে। প্রতিটি ভ্রমন পিপাসুদের কাছে দৃস্টিগোচর হবে এখান কার প্রাকৃতিক দৃশ্য। চারিদিকে সবুজের সমরোহে মুখরিত হবে আপনার মন। নদীর ঢেউয়ের তরঙ্গে দুলতে থাকা ছোট ছোট চলমান নৌকা আপনাকে নিয়ে যাবে আপনার শৈশবে। আপনার শৈশবের দস্যিপনাকে মনে করিয়ে দিবে ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের নাইতে নামার দৃশ্য। নদীর স্রোতে তাদের সাতার কাটার দৃশ্য আপনাকে নস্টালজিক করবে।

খাটি গাভীর দুধে তৈরী করা এক কাপ চা হাতে করে নদীর পাড়েই উপভোগ করতে পারেন আপনার অবসরের দিনটি। দিনে এক এক সময় এক এক রুপ ধারন করা এই গ্রামের দৃশ্য কুড়েরপাড় ব্রিজ থেকে অনেকটাই উপভোগ করতে পারবেন।

খুব অল্প সময়ে আপনি যেতে পারেন কুড়েরপাড় গ্রামটিতে নগর জীবনকে ছুটি দিয়ে কিছুটা প্রকৃতির ছোয়া পেতে পরিবার-বন্ধুদের নিয়ে যে কোন সময় চলে যেতে পারেন অপরূপ সৌন্দর্যের লীলাভুমি কুড়েরপাড়ে।

নারায়ণগঞ্জ শহর থেকে আপনি যেকোন ভাবে যেতে পারেন ডিক্রিরচর ঘাটে। যেখানে আপনাকে পাড়ি দিতে হবে ধলেশ্বরী নদী। ট্রলার ভ্রমনে নদীর তীব্র স্রোত আপনাকে দিবে এক রোমাঞ্চকর অনুভূতি। ডিক্রিরচর বাজারে নেমে আপনি সরাসরি চলে যেতে পারেন কুড়েরপাড়, যেতে যেতে দুপাশের প্রাকৃতিক দৃশ্য আপনাকে স্মরণ করিয়ে দিবে কবি গুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গান “গ্রাম ছাড়া ঐ রাঙ্গামাটির পথ, আমার মন ভূলায় রে”। বাড়ির কাছেই গ্রামীন পরিবেশের স্বাদ নিতে চলে যান আজই।সাথে ক্যামেরা নিতে ভুলবেন না।

নারায়ণগঞ্জ শহর থেকে রিকশায় ডিকিরচর ঘাটে যেতে আপনাকে গুনতে হবে ৪০-৫০ টাকা।
নৌকা পারাপারে জনপ্রতি ৫ টাকা আর ডিক্রিরচর বাজার থেকে কুড়েরপাড় অটো রিজার্ভ নিবে ৪০-৫০ টাকা। তাই আর দেরী না করে ঘুরে আসুন কুড়েরপাড় থেকে। উপভোগ করুন গ্রামীন পরিবেশ।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin