আর গরুর ব্যবসা করমু না

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

রাত পোহালে ঈদুল আযহা এর মধ্যে জমে উঠেছে জেলার পশুর হাটগুলো। শেষ সময়ে চলছে গরু বেচা কেনা।

কিন্তু এইবার অনেকটাই হতাশ নারায়াণগঞ্জে বিভিন্ন জেলা থেকে আগত গরুর বাপারীরা। তাদের দাবি ক্রেতারা দাম শুনেই সরে যাচ্ছেন। যেই দাম বলছে তা গরু কেনা দাম থেকে অনেক কম।

আজ (২০ জুলাই) ইতিমধ্যে নগরীর ফতুল্লা হাটে সরজমিনে গিয়ে এক বেপারীর সাথে কথা বলে জানা গেছে তিনি প্রতিটি গরু লোকসানে ছেড়ে দিচ্ছেন, তার মেখে চিন্তা ছাপ। তিনি জানান, ধার দেনা করে গরু ক্রয় করে ছিলাম কিন্তু লাভতো দূরের কথা চালানই উঠাতে পারছিনা। অন্যদিকে সিরাজগঞ্জ জেলা থেকে আগত মানিক মিয়া নামে এক বেপারী জানালো, দুইটি বড় গরু এনেছিলাম আমার ২ লাখ টাকা লস হইছে। নারায়াণগঞ্জের মানুষ দামই বলে না। শেষমেষ লসে বেইচা দিসি। কানে ধরছি আর গরুর ব্যবসা করুম না।

অন্যদিকে ক্রেতারা জানাচ্ছে হাটে গরুর দাম পড়ে গিয়েছে গত দুই – তিন দিন এর তুলনায় বাজার অনেক কম এখন।

ফতুল্লা হাটের ইজারাদারদের সাথে কথা বললে তারা জানান, তাদের হাট এখন জমে উঠেছে প্রচুর গরু রয়েছে হাটে এবং ক্রেতাও প্রচুর। তারা আশা করছে সবাই তাদের পছন্দ মতো পশু ক্রয় করতে পারবে এবং ঈদের দিন সকাল নাগাদ সব পশু বিক্রি হয়ে যাবে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin