আরও কিছুটা ভাড়া কমতে পারে ভবিষ্যতেঃ শামীম ওসমান

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নারায়ণগঞ্জ ৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমান নারায়ণগঞ্জে বাস ভাড়া বৃদ্ধির প্রসঙ্গে বলেন,  যৌক্তিক কারণেই তেলের দাম বাড়ানো হয়েছে। নারায়ণগঞ্জে আমি নিজেও শীতল বাস পরিবহনের সাথে জড়িত রয়েছি। 


সেখানে সরকারি ভাড়া নির্ধারণ অনুযায়ী ৭০ টাকা ভাড়া হওয়া উচিত। আমি গতকালই তাদের বলেছি ভাড়া কমানোর জন্য। তারা পাঁচ টাকা কমিয়ে ৬৫ টাকা করেছেন। 


এই ভাড়া  সরকারি নির্ধারণী ভাড়া থেকে ৫  টাকা কম। অন্যান্য প্রতিষ্ঠানও আমাদের অনুরোধে ৫ টাকা কমিয়েছেন। আমরা হয়তো আরও কিছুটা ভাড়া কমাতে পারি ভবিষ্যতে। নারায়ণগঞ্জ শহরের ভিতরে ডেড সিটি বলা যায়। 


এখান থেকে একটা বাস ঘুড়িয়ে আনতে প্রায় আধা ঘণ্টার মতো সময় লাগে। এই সময়ে এবং  সাইনবোর্ডের মোড়ের যানজটে  বাসের তেল পুড়ে। এসব জায়গা যদি যানজট মুক্ত রাখা যায়,  এই তেল পুড়ে নষ্ট হয় না। তখন জনস্বার্থে আমরা তাদের  বলতে পারি, আরো কিছু ভাড়া কমানোর জন্য।


মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) বিকালে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক কার্যালয় প্রাঙ্গণে প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন। 


তিনি আরো বলেন, রুট পারমিট ছাড়া যেসব গাড়ি চলছে, সেসব গাড়ির না চললে যারা রুট পারমিট নিয়ে গাড়ি চালাচ্ছে তাদের আরো কিছু ট্রিপ পায়। তখন তারা জনস্বার্থে ভাড়া কমাতে পারে।  আমি বলেছি সরকারের নির্ধারনী ভাড়া থেকে ৫ টাকা কমান। 


ভাড়া কমানোর কারণে বাস বাস মালিকদের কাছে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানাই। প্রশাসন যদি রুট পারমিট দেখে ও যানজট নিরসনে সচেষ্ট হয়।  তাহলে ভবিষ্যতে বাস মালিকদের সাথে যৌক্তিক কারণ দেখিয়ে কথা বললে আরো ভাড়া কমানো সম্ভব হবে বলে মনে হয়।


সাংসদ শামীম ওসমান বলেন, রুট পারমিট ও যানজটের বিষয়ে ১১ তারিখের পরে কথা বলব। প্রয়োজনে সাধারণ ছাত্রদের নিয়ে পূর্বে আমরা যেভাবে ট্রাফিক যানজট নিরসনে মাঠে নেমেছিলাম সেভাবে ট্রাফিকিং করে দেখাবো কিভাবে  যানজট মুক্ত করা যায়।  


তারপরও  দায়িত্বরতরা ওইটা  অনুসরণ করলে মনে হয় বাসের ভাড়া আরেকটু কমানো যায়। যানজটে বাস এক জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকলে তেল পুড়ে।  তাদেরও যুক্তিযুক্ত কারণ আছে, ব্যবসা তো করে মুনাফার জন্য।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin