আজ জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার ‘জাহাঙ্গীর আলম’ এর জম্মদিন

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

১৯৮৯ সালে বাংলাদেশের অনূর্ধ্ব ১৯ দল ইংল্যান্ড সফরে যায়। সেই দলে ছিলেন ডানহাতি একজন ব্যাটসম্যান যিনি উইকেটকিপার- ব্যাটসম্যান। পুরো সফরে ৪৩.৮০ গড়ে করেন ২১৯ রান। সে সফরে জাভেদ ওমর বেলিমের সাথে মিলে এক ম্যাচের উদ্বোধনী জুটিতে দলের হয়ে যোগ করেন ২১০ রান।

বাংলাদেশের হয়ে আইসিসি ট্রফিতে ৮ ম্যাচে করেন ২৯১ রান। ১৯৯৪ সালের আইসিসি ট্রফির মাধ্যমে বিশ্বকাপে কোয়ালিফাই করা দুই দল সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং কেনিয়ার বিপক্ষে করেন যথাক্রমে ১১৭ ও ৫৮ রান। সেবারই আইসিসি ট্রফির মাধ্যমে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল বিশ্বকাপ খেলতে পারেনি তা নিয়ে এখনো হতাশার গল্প বিভিন্ন সময় লেখা হয়। সেই আক্ষেপ ‘৯৭ এ দূর হয়। বাংলাদেশ দল আইসিসি ট্রফি জয় করে বিশ্বকাপ খেলার যোগ্যতা অর্জন করে।

সেই দলের সদস্য ছিলেন তিনি। তাঁর নাম জাহাঙ্গীর আলম। তিনি বাংলাদেশের হয়ে তিনটি ওয়ানডে খেলেন যেখানে তার সংগ্রহ মোটে ৪ রান। ওপেনিং ব্যাটসম্যান হিসেবে মারকুটে ছিলেন, দলে তার ছদ্মনাম ছিলো ‘জাইঙ্গা’। অনেকে বলেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তার প্রতিভার প্রতি তিনি সুবিচার করতে পারেননি।

তার খেলা কখনো দেখা হয়নি তাই সে বিষয়ে কোন কিছু বলার মত কিছু নেই। বর্তমানে নারায়ণগঞ্জ-এ “ক্লেমন নারায়ণগঞ্জ ক্রিকেট একাডেমি” বিসিবির কোচ হিসেবে কাজ করছেন। নারায়ণগঞ্জ শহরে বা এর আশেপাশে থেকে অনেক ক্রিকেটার উঠে এসেছে। শাহরিয়ার হোসেন বিদ্যুৎ, মোহম্মদ শরীফ, শাহাদাত হোসেন, মৃদুল এদের কথা বলা যায়। তবে নারায়ণগঞ্জের সাধারণ মানুষের কাছে সবচেয়ে সুপরিচিত মুখ এই জাহাঙ্গীর আলম।

যারা ক্রিকেট বোঝে না বা খোঁজ খবর রাখে না তারাও এই ক্রিকেটার জাহাঙ্গীরকে জানে। তিনিও খুব সাধারণ মানুষের মতো জীবনযাপন করেন। প্রায়শই তাকে দেখতে পাই। কিন্তু কথা বলি না কিংবা চিনলেও এড়িয়ে যাই। এই জায়গায় নাজমুল ইসলাম অপুকে যদি পাওয়া যেতো তাহলে অবস্থাটা হতো কি ! তাঁর সম্পর্কে এতো কিছু বলার কারণ আজ তার শুভ জন্মদিন। ১৯৭৩ সালের এই দিনে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর জন্মদিনে তাকে জানাই শুভেচ্ছা এবং তার সুন্দর ও সুস্থ ভবিষ্যতের জন্য দোয়া করি।

শুভ জন্মদিন জাহাঙ্গীর আলম।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin