আইভীর থেকে ৮ প্রশ্নের উত্তর চান ওলামা পরিষদ

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর প্রতি বেশ কিছু প্রশ্ন ছুড়ে দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর ওলামা পরিষদের নেতারা। এ সব প্রশ্নে উত্তরের পাশাপাশি চেয়েছেন সমাধানও।

নগরীর প্রেস ক্লাব ভবনের একটি রেষ্টুরেন্টে বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) দুপুর ৩টার দিকে এক সাংবাদিক সম্মেলন থেকে নারায়ণগঞ্জ মহানগর ওলামা পরিষদ ওই প্রশ্ন গুলো করেন।

মহানগর ওলামা পরিষদের সভাপতি মাওলানা ফেরদাউসুর রহমানের সভাপতিত্বে সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ওলামা পরিষদের নেতাকর্মীরা।

১/ মাসদাইর কেন্দ্রীয় কবরস্থান মসজিদ সংলগ্ন হাফেজীয়া ও এতিমখানা মাদ্রাসাটি উচ্ছেদের পর অধ্যবদি পুন:স্থাপন করা হল না কেন?

২/চাষাঢ়া বাগে জান্নাত মসজিদ ও মাদ্রাসার কাজ বন্ধ করলেন কেন?

৩/ ওলামা পরিষদের সভাপতি মাওলানা আব্দুল আউয়াল ও ওলামা পরিষদের নেতৃবৃস্দের ব্যাপারে কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য দিয়ে আপনি ও আপনার লোকেরা কি অর্জন করতে চান?

৪/ডিআইটি জামে মসজিদসহ সিটি করপোরেশন এলাকার অন্যান্য মসজিদ মাদ্রাসা ঈদগাহ ও কবরস্থান কমিটির সাথে অসৌজন্য আচরণ, প্ররোক্ষ ও প্রচ্ছন্ন পেরেশানি হুমকি প্রদাপন করা একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে কতটা ন্যায্য?

৫/ এক মেয়াদের পৌর চেয়ারম্যান ও দু’বারের সিটি মেয়র হিসেবে মসজিদ, মাদ্রাসা দ্বীন ঈমান সংরক্ষন ও সম্প্রসারনে আপনি কি কি ভূমিকা পালন করেছেন?

৬/ সিটি মেয়রের পদকে ব্যবহার করে মাজার সেজদা, কবরস্থানে ঢোল-বাজানোসহ শিরক, বিদআত ও কুসংস্কার চর্চা করে ইসলাম বিরোধী আক্বীদা ও আমল সমাজে প্রতিষ্ঠিত করার অপচেষ্টা কেন করছেন?

৭/ নারায়ণগঞ্জের স্থানীয় ও আপনার নিজ দলীয় রাজনৈতিক বিভেদ, মসজিদ মাদ্রাসা সংরক্ষনের আন্দোলনের সাথে একাকার করে রাজনৈতিক রূপদেয়ার অপচেষ্টা কেন করছেন?

৮/ ইতিপূর্বে আপনি মাসদাইর কেন্দ্রীয় কবরস্থানের এতিমখানা মাদ্রাসাটি বর্তমানে কোথায় অবস্থিত?

মাওলানা ফেরদাউসুর রহমান বলেন. ওলামা পরিষদের সম্মানিত সভাপতি মাও. আব্দুল আউয়াল সাহেবসহ ওলামা পরিষদের নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে হুমকি-ধমকি বন্ধ করে বর্ণিত ইস্যুগুলোতে নেতিবাচক দৃষ্টি পরিহার করে সমাধানের দৃষ্টিতে দেখার আহবান করছি। অন্যথায় নারায়ণগঞ্জের সর্বস্তরের জনগনকে সাথে নিয়ে বৃহত্তর আন্দোলনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টিতে এনে এ বিষয়ে সুরাহ করার উদ্যোগ গ্রহন করব।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, মহানগর ওলামা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মাও. হারুনুর রশীদ, কোষাধ্যক্ষ দেলোয়ার হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মাও. মীর আহমাদুল্লাহ, সহ-সভাপতি মুফতি আনিস আনসারী, জয়েন সেক্রেটারি মাও. মোস্তফা হাবীব ও তাজুল ইসলাম আব্বাস প্রমুখ।

সূত্রঃ লাইভ নারায়ণগঞ্জ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin